নড়াইল জেলা কৃষকলীগের বর্ধিত সভা

132

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইল জেলায় কৃষকলীগের সাংগঠনিক কর্মকান্ডে গতিশীলতা আনতে আগামী তিন মাসের মধ্যে জেলার তিনটি উপজেলার সকল ইউনিয়নে সম্মেলন সম্পন্ন করে কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। এছাড়া নড়াইল সদর পৌরসভা ও নড়াগাতী থানায় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার নড়াইল জেলা কৃষকলীগের বর্ধিত সভায় দ্বিতীয় পর্বে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
জেলা কৃষকলীগের সভাপতি মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক খান জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষকলীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ। সভার উদ্বোধন ঘোষণা করেন আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান জিন্নাহ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নড়াইল জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু, নবনির্বাচিত পৌর মেয়র আঞ্জুমান আরা, সম্মাণিত অতিথি কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শরীফ আশরাফ আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম পানু, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক শামীমা সুলতানা, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হালিমা রহমান, সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নূরুল ইসলাম বাদশা, কার্যনির্বাহী সদস্য মাহফুজা রুবি সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সভায় বক্তব্যকালে প্রধান অতিথি বাংলাদেশ কৃষকলীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ বলেন, ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট আমাদের পূর্বপুরুষ রাজনীতিবিদরা সংগঠনকে সক্রিয় করার ব্যর্থতার দায়ভারের মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুকে বাঁচাতে পারেনি। আজ পর্যন্ত শেখ হাসিনাকে মারতে ষড়যন্ত্র চলছে। আমি মনে করি, কৃষকলীগকে সংগঠিত করেই আমাদের প্রিয় নেত্রীকে বাঁচাতে হবে। সে জন্য তৃণমুল পর্যায়ে কৃষকলীগকে সংগঠিত করতে কাজ শুরু করা হয়েছে।’

বর্ধিত সভার দ্বিতীয় পর্বে কৃষকলীগ নড়াইল পৌরসভা শাখায় তরিকুল ইসলাম মিলনকে আহবায়ক ও আমিনুর রহমান মিঞাকে যুগ্ম আহবায়ক করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। আগামী তিন মাসের মধ্যে ওয়ার্ডগুলির সম্মেলন সম্পন্ন করে কমিটি গঠন নির্দেশনা দেয়া হয় এই কমিটিকে।

এছাড়া নড়াগাতী থানায় মোঃ ফারুক হোসেন আহবায়ক ও চৌধুরী আনিচুর রহমানকে যুগ্ম আহবায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে।
বর্ধিত সভায় জেলার তিনটি উপজেলার ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।