সংসদের একাদশ অধিবেশন সমাপ্ত

42

ডেস্ক রিপোর্ট: একাদশ জাতীয় সংসদের একাদশ ও ২০২১ সালের প্রথম অধিবেশন আজ শেষ হয়েছে। স্পিকার ড.শিরীন শারমিন চৌধুরীর অধিবেশন সমাপ্তি সংক্রান্ত রাষ্ট্রপতির ঘোষণা পাঠ করার মধ্য দিয়ে এ অধিবেশন শেষ হয়।


বছরের প্রথম অধিবেশন হিসেবে সংবিধান অনুযায়ী অধিবেশনের প্রথম দিন গত ১৮ জানুয়ারি রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেন। পরদিন গত ১৯ জানুয়ারি চীফ হুইপ নুর-ই-আলম চৌধুরী রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপন করলে সরকারি দলের সদস্য উপাধ্যক্ষ মো. আবদুস শহীদ এ প্রস্তাব সমর্থন করেন। এর পর গত ১১ কর্য দিবস ভাষণের ওপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।


এ অধিবেশনের ১২ কার্য দিবসে মোট ৬ টি বিল পাস হয়েছে। আইন প্রণয়ন কার্যাবলী ছাড়াও এই অধিবেশনে কার্য প্রণালী-বিধির ৭১ বিধিতে ৪৬টি নোটিশ পাওয়া যায়। এ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর উত্তরদানের জন্য সর্বমোট ৮৪টি প্রশ্ন পাওয়া যায়। তার মধ্যে তিনি ২৮টি প্রশ্নের উত্তর দেন। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের উত্তর দানের জন্য মোট ১৬৮৯টি প্রশ্ন পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৮২০টি প্রশ্ন সম্পর্কে তারা উত্তর প্রদান করেছেন।

সমাপনি ভাষণে স্পিকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে উন্নীত হবে। ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও বৈষম্যমুক্ত বাংলাদেশ তথা অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জনের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করাই আমাদের মূল লক্ষ্য।


তিনি আইন প্রণয়ন প্রক্রিয়াসহ সংসদীয় অন্যান্য কার্যক্রমে সংসদ সদস্যদের সহনশীল আচরণ ও গঠনমূলক আলোচনা তাকে মুগ্ধ করেছে উল্লেখ করে বলেন, ‘রাষ্ট্র পরিচালনায় সঠিক দিক নির্দেশনা, গতিশীল নেতৃত্ব এবং বাংলাদেশের জন্য গৌরব ও সম্মান বয়ে আনার জন্য সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সশ্রদ্ধ অভিনন্দন জানাচ্ছি।’


তিনি সংসদ পরিচালনায় সহযোগিতা করায় বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এছাড়া সংসদ উপনেতা, মন্ত্রীসভার সদস্যবৃন্দ, চীফ হুইপ ও হুইপবৃন্দ এবং সকল সংসদ-সদস্যের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


এছাড়া তিনি ডেপুটি স্পিকার ও সভাপতিমন্ডলীর সদস্যবৃন্দ, সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ এবং দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী জাতীয় দৈনিক, বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা, বাংলাদেশ বেতার, সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেসরকারী টিভি চ্যানেলসহ দেশের সব গণমাধ্যমের সাংবাদিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান ।