‘নড়াইল পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে করতে মাশরাফীর আহবান’ -ডিসি

130

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ‘নড়াইল-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা আমাকে জানিয়েছেন যে, নড়াইল সদর পৌরসভার নির্বাচন যেন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়। সেদিক দিয়ে এ নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে আমাদের সকল ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে।’

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের উদ্যোগে বুধবার (২০ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে নড়াইল পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন-২০২১ উপলক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীগণের সাথে প্রশাসনের মতবিনিময় সভায় উপরোল্লেখিত কথাগুলি নড়াইলের জেলা প্রশাসক মো: হাবিবুর রহমান বলেছেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন, সুষ্ঠু পরিবেশে ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন করতে প্রয়োজনে আমরা আইন প্রয়োগ করতে দ্বিধাবোধ করবো না।’ ‘সুতরাং আপনারা সকলে নির্বাচন কমিশনের দেয়া সকল আচারণ বিধি মেনে চলবেন।’

জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভায় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) নড়াইল সদর পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীগণের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘দেশে অন্যান্য জেলার তুলনায় নড়াইলে সব সময়ই বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের তৎপরতায় নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং আগামীতেও সকল নির্বাচন সুষ্ঠু পরিবেশেই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’ ‘এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি শান্ত রাখতে পুলিশ বাহিনী শক্ত অবস্থানে রয়েছে এবং থাকবে। আমরা নিরপক্ষ ছিলাম এবং থাকবো। ’

এ সময় তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমান নড়াইলে প্রশাসনের যে টীম রয়েছে তা অত্যন্ত ভালো, সকলের সাথে সমন্বয় করে নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত করেত কোন বাধা নেই।’ ‘আপনারা সকলে নির্বাচন কমিশনের দেয়া সকল আচারণ বিধি মেনে চলবেন।’ এছাড়া এখন পর্যন্ত নির্বাচনে সহিংসতা নিয়ে আমাদের কাছে কোন লিখিত অভিযোগ আসেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে অতিতেও আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি এখনও নিবো ইনশাল্লাহ।’ ‘তবে মুখে মুখে ভাসা ভাসা অভিযোগ তুললে বা করলে হবে না। সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ করতে হবে।’

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সুমী মজুমদার, সদরের ইউএনও সালমা সেলিম, জেলা নির্বাচন অফিসার মো: ওয়ালিউল্লাহ, সদর থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন, মেয়র প্রার্থী আনজুমান আরা (নৌকা), জুলফিকার আলী (ধানের শীষ), মাও. মো. খায়রুজ্জামান (হাতপাখা) কাউন্সিলর প্রার্থীগণ।