বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীনতম গুহাচিত্র পাওয়া গেলো ইন্দোনেশিয়ায়

34

ডেস্ক রিপোর্ট: ইন্দোনেশিয়ার সুলাওসি দ্বীপের প্রত্যন্ত উপত্যকার লেয়াং টেডংঞ্জ গুহায় ৪৫ হাজার ৫০০ বছরের পুরনো এই প্রাচীনতম প্রাণীর গুহাচিত্রটি আবিষ্কার করেছেন প্রত্নতত্ত্ববিদরা। এই গুহায় শুধুমাত্র শুষ্ক মৌসুমে প্রবেশ করা যায়, বর্ষা মৌসুমি গুহাটি পানিতে পরিপূর্ণ থাকে।

এই গুহাচিত্রটি একটি বিপন্ন প্রজাতি ওয়ারটি শুকরের। ১৩৬ থেকে ৫৪ সেন্টিমিটারের। এর বৈশিষ্ট্য প্রাপ্ত বয়স্ক পুরুষ শুকরের। শূকরটির হাতের অংশটির ওপরে দুইটি হাতের ছাপ রয়েছে। যা দেখে মনে হচ্ছে শূকরটি লড়াই বা অন্য যে কোনো কিছুর জন্য অন্য দুইটি শূকরের মুখোমুখি অবস্থান করছে।

গাঢ় লাল রং ব্যবহার করে এটি আঁকা হয়েছিলো। যা এই অঞ্চলে মানুষের বসতি স্থাপনের প্রাথমিক প্রমাণ সরবরাহ করে।

সায়েন্স অ্যাডভান্স জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনের সহ লেখক ম্যা´িম অবার্ট বলেন, ‘এই চিত্রটি যারা একেছিলেন তারা পুরোপুরিই আধুনিক ছিলেন, আমাদেরই মতো। তাদের নিজেদের পছন্দসই চিত্রকর্ম আঁকার ক্ষমতা ও সরঞ্জাম ছিলো।’

ডেটিং বিশেষজ্ঞ অবার্ট এই চিত্রকর্মের শীর্ষে একটি ক্যালসাইটের স্তর শনাক্ত করেন। এবং এটি যে ৪৫ হাজার ৫০০ বছরের পুরনো তা নির্ণয় করতে ইউরেনিয়াম সিরিস আইসোটোপ ব্যবহার করেন। তিনি বলেন, এটি ৪৪ হাজার বছরের পুরনো। তারও আগের হতে পারে। কারণ আমরা শুধুমাত্র ক্যালসাইটের ওপর নির্ভর করে এর তারিখ অনুমান করেছি।’

এটি প্রাচীনতম একটি গুহাচিত্র হলেও মানুষের আঁকা সবচেয়ে প্রাচীন গুহাচিত্র নয়। এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকাতে ৭৩ হাজার বছরের পুরনো একটি হ্যাশট্যাগের মতো ডুডল আবিষ্কার হয়েছিলো। যেটিকে সবচেয়ে প্রাচীনতম অঙ্কন বলে মনে করা হয়।