কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার মেহেদীর

4

ডেস্ক রিপোর্ট: চট্টগ্রামে কলেজছাত্রীকে বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণের মামলায় মেহেদী হাসান আশিক রব্বানী আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সোমবার চট্টগাম মেট্রপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন তিনি। পরে তাকে কারাগারে পাঠান আদালত।

এর আগে সোমবার ভোরে নোয়াখালীর মাইজদী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। মেহেদীর বাসাতেই আলোচিত সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর পালিয়ে নোয়াখালীর মাইজদীর ফতেপুর এলাকায় খালার বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন মেহেদী।

নগরীর আকবর শাহ থানার ওসি জহির হোসেন বলেন, আসামিকে আদালতে পাঠানো হলে তিনি ঘটনা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গত ১১ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম নগরীর আকবরশাহ থানার পূর্ব ফিরোজ শাহ কলোনির একটি বাসায় এক কলেজছাত্রীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন আসামি মেহেদী ও তার বন্ধু আরিয়ান। এই ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে আকবরশাহ থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

মামলায় বলা হয়, আরিয়ানের সঙ্গে তার দ্বাদশ শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বাসা থেকে নিষেধ করায় ওই কলেজছাত্রী আরিয়ানকে এড়িয়ে চলতে শুরু করেন। ঘটনার দিন আরিয়ান তাকে ফোন করে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়ে বন্ধু মেহেদীর বাসায় আছেন জানিয়ে দেখা করতে বললে সেখানে যায় মেয়েটি। পরে ওই কলেজছাত্রী সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করেন তারা। ঘটনার সময় মেহেদীর বাসায় কেউ ছিল না। মেয়েটি চিৎকার-চেঁচামেচি করলে বাইরে থেকে যেন শোনা না যায় সেজন্য উচ্চস্বরে গান ছেড়ে দিয়েছিল আসামিরা। মামলার প্রধান আসামি রাকিবুল হাসান আরিয়ানকে গত ১৬ ডিসেম্বর গ্রেপ্তার করে পুলিশ।