বাংলাদেশ-ভারতে করোনার সূচনা , চীনা গবেষণায় দাবি

32

ডেস্ক রিপোর্ট: চীনের একদল বিজ্ঞানী তাদের এক গবেষণার বরাত দিয়ে দাবি করেছেন—চীন নয়, এই ভাইরাসের উৎপত্তি ভারত কিংবা বাংলাদেশের কোনো শহরে। তবে এ ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্টভাবে কোনো শহরের নাম তারা জানাননি।

গবেষকরা বলছেন— ডিসেম্বরে উহানে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ শনাক্ত হলেও ভারত বা বাংলাদেশে এই ভাইরাসের সংক্রমণ হয়েছে আরও তিন থেকে চার মাস আগে। অর্থাৎ সংক্রমণ ঘটার সম্ভাব্য সময় গত বছর জুলাই থেকে আগস্টের মধ্যে।

গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের মে থেকে জুন মাসে রেকর্ড দ্বিতীয় দীর্ঘতম দাবদাহ তাণ্ডব চালিয়েছিল উত্তর-মধ্য ভারত এবং পাকিস্তানে। ফলে ওই অঞ্চলে ভয়াবহ পানির সংকট সৃষ্টি হয়। পানির অভাবে বানরের মতো বন্যপ্রাণী একে অপরের সঙ্গে ভয়াবহ লড়াইয়ে লিপ্ত হয়েছিল এবং অবশ্যই এটি মানুষ-বন্যপ্রাণী সংস্পর্শের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলেছিল।

এ ধারণার ভিত্তিতেই চীনা গবেষকরা দাবি করেছেন, করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ উহানে হয়নি। ভারত কিংবা বাংলাদেশের মতো জায়গাগুলো, যেখানে কম রূপান্তরিত ভাইরাসের নমুনা পাওয়া গেছে, সেখানেই হতে পারে এর আসল উৎস। ভারত-বাংলাদেশের পাশাপাশি করোনার সম্ভাব্য উৎস হিসেবে রাশিয়া, গ্রিস, সার্বিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, যুক্তরাষ্ট্র ও চেক রিপাবলিকেরও নাম বলেছেন চীনের ওই গবেষকরা।

তবে ভারতের বিজ্ঞানীরা চীনা বিজ্ঞানীদের এই দাবিকে নাকচ করে দিয়েছেন। আর আন্তর্জাতিক গবেষকরা বলছেন, এটি একটি ‘ত্রুটিপূর্ণ’ গবেষণা।

ভারতীয় ভাইরোলজিস্ট মুকেশ ঠাকুর সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টকে বলেছেন, এই গবেষণায় তথ্য-উপাত্ত ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

গ্লাসগো ইউনিভার্সিটির ভাইরাল জিনোমিক্স অ্যান্ড বায়োইনফরম্যাটিকস বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডেভিড রবার্টসন চীনা বিজ্ঞানীদের গবেষণাপত্রকে খুবই ত্রুটিপূর্ণ বলে উল্লেখ করেছেন।

প্রভাবশালী জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট চীনা বিজ্ঞানীদের গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করার প্রস্তুতি নিয়েছে। ইতিমধ্যে ল্যানসেট–এর প্রাক্‌-প্রকাশনা অনলাইন প্ল্যাটফর্মে এই প্রবন্ধ প্রকাশ করা হয়েছে।

ওই প্রবন্ধ উদ্ধৃত করে শুক্রবার ব্রিটিশ সংবাদপত্র দ্য সান বলছে, উহানের দোষ এখন বাংলাদেশ বা ভারতের ওপর চাপানোর চেষ্টা হচ্ছে।

চীনের বিজ্ঞানীদের এই দাবিকে পুরোপুরি অনুমাননির্ভর জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মাইক রায়ান এক ভার্চ্যুয়াল ব্রিফিংয়ে বলেন, চীন থেকে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হয়নি, এমন কথা বলা আমাদের জন্য একেবারে অনুমাননির্ভর হবে।

গত বছর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। গত বছর ৩১ ডিসেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার চীনের কার্যালয় আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন ভাইরাসের তথ্য প্রকাশ করে। বাংলাদেশে প্রথম রোগী শনাক্তের ঘোষণা আসে ৮ মার্চ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৬০ হাজার ৬১৯ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ৬ হাজার ৫৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৭৫ হাজার ৮৮৫ জন।

গবেষণাভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য বলছে, এখন পর্যন্ত বিশ্বে মোট ছয় কোটি ২৫ লাখ ৪৯ হাজারের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৪ লাখ ৫৭ হাজার ৪২৯ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন চার কোটি ৩১ লাখ ৭২ হাজারের বেশি রোগী।