কোয়ারেন্টাইন বিধি ভাঙলেন দেশে ফিরেই সাকিব!

38

ডেক্স রিপোর্ট: শুক্রবার, (৬ নভেম্বর) ভোরবেলায় নিউইয়র্ক থেকে দেশে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান। শুক্রবার দুপুরেই রাজধানীর গুলশানে একটি রিটেইল কোম্পানির আউট লেট উদ্বোধনের ফিতা কেটেছেন। যথারীতি চারধার ঘিরে থাকা ভিড়ের মধ্যেই এই শুভকাজ সুসম্পন্ন করেছেন সাকিব।

এতে প্রশ্ন উঠছে দেশে ফিরে মাত্র ২৪ ঘণ্টা না যেতে সাকিব এই সময়টায় লোকালয়ের ভিড়ে এই দোকান উদ্বোধন করে সরকারের করোনা বিধি বিধান ভঙ্গ করেছেন কিনা?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ অনুযায়ী বাংলাদেশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনা বিধিতে কোয়ারেন্টাইন পালনের যে বিধান রেখেছে তাতে স্পষ্ট- সাকিব কোয়ারেন্টাইনের নিয়মটা ভেঙেছেন।

এদিকে দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোয়ারেন্টাইন বিষয়ক বিধিতে স্পষ্ট লেখা আছে- কোন বাংলাদেশি নাগরিক বিদেশ থেকে দেশে ফিরে এলে তার যদি করোনা নেগেটিভের মেডিকেল সার্টিফিকেট না থাকে তাহলে তাকে অবশ্যই প্রথম ১৪ দিন ঢাকায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে; আর যদি তার সেই সার্টিফিকেট থাকে তাহলে সেই যাত্রীকে ১৪ দিন নিজ বাড়িতে অথবা স্বেচ্ছা কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

স্বাস্থ্য সেবা অধিদপ্তরের দায়িত্ববান কর্মকর্তা নাসিমা সুলতানাও জানান, কোন বিদেশ ফেরত যাত্রী যদি করোনা নেগেটিভের মেডিকেল সার্টিফিকেট সঙ্গে নিয়ে আসেন তাহলে তাকে নিজ বাসায় অথবা নিজের তত্ত্বাবধানে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে।

স্বাস্থ্যসেবা অধিদপ্তরের এই নিদের্শাবলি স্পষ্ট জানাচ্ছে- সাকিব আল হাসান কোয়ারেন্টাইন বিধি পালন করেননি। বিদেশ থেকে দেশে ফিরে ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে তিনি ভিড়ে এসেছেন। গুলশানে যে দোকানে তিনি ফিতে কেটে উদ্বোধন করেছেন সেখানেও সামাজিক দূরত্ব পালনের ছিঁটেফোটা কিছুই ছিল না। গায়ে গা লাগিয়ে ছবি তোলার উৎসবের মেজাজে আর যাই হোক, সামাজিক দূরত্ব পালন করা যায় না!

গুলশানে সাকিব যে দোকানটি উদ্বোধন করেছেন তাদের কর্তৃপক্ষের দাবি এতে কোয়ারেন্টাইনের কোনো বিধি-বিধান ভঙ্গ হয়নি। এই রিটেইল শপের এক কর্তা খালেদুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, আমরা জানি যে কোন যাত্রীর করোনা নেগেটিভের মেডিকেল সার্টিফিকেট থাকলে এবং বিমান বন্দরে মাপা তাপমাত্রা অনুযায়ী জ্বর না থাকলে তার আর কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন হয় না।

তার দাবি তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে খোঁজ নিয়ে মৌখিকভাবে এই তথ্য জেনেছেন। সেই তথ্য সাকিবের কাছে দিয়েছেন এবং তারপর সাকিব এই কর্মসূচিতে অংশ নিতে সম্মত হয়েছেন।

আইসিসি’র এক বছরের নিষেধাজ্ঞা সাকিব আল হাসানের শেষ হয়েছে ২৯ অক্টোবর। ২০ নভেম্বর থেকে বিসিবি’র টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট লিগে খেলতে সাকিব দেশে এসেছেন। ৯ নভেম্বর সাকিবের ফিটনেস টেস্ট হবে। সেই ফিটনেস টেস্টের আগে অবশ্য বিসিবি সাকিবের করোনা টেস্ট করবে।