নড়াইলে জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবসের উদ্বোধন

83
All-focus

নড়াইলকণ্ঠ ॥ ‘উন্নত স্যানিটেশন নিশ্চিত করি, করোনাভাইরাস মুক্ত জীবন গড়ি’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নড়াইলে স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উদ্বোধন করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসন ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আয়োজনে বুধবার (২১ অক্টোবর) সকাল ১১টায় বেলুন উড়িয়ে দিবসটি উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা। উদ্বোধন শেষে ২০ সেকেন্ডে হাত ধোয়া প্রদর্শন করে দেখান হয়।

এ সময় জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, আমরা ঘরের বাইরে গেলেই মাস্ক ব্যবহার করবো, বাইরে থেকে বাসায় বা অফিসে ফিরলে ভালো করে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিবো।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ইয়ারুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), নড়াইলের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলমোঃ জাহিদ পারভেজ (অঃ দাঃ), উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মাহমুদুল আলা, সোহেল রানা সহ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, স্যানিটেশন জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার পূর্বশর্ত। এ কারনে দেশের জনস্বাস্থ্যের উন্নয়নে সকলের জন্য স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা অপরিহার্য। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে উন্নত স্যানিটেশন ব্যবস্থার গুরুত্ব আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মহামারি মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেছে। সুন্দর জীবন ও সুস্থতার জন্য প্রতিটি কাজের ক্ষেত্রে বিশেষ করে খাবার আগে ও শৌচকাজ শেষে সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস অত্যন্ত জরুরি। স্যানিটেশন কর্মসূচির সফল বাস্তবায়নে এসকল কার্যক্রমে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। স্যানিটেশন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাসমূহ সমন্বিত প্রয়াস অব্যাহত রাখবে এমনটি প্রত্যাশা করে এবছর জাতীয় স্যানিটেশন মাস এবং বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ এক বাণীতে এসব কথা বলেছেন।

তিনি আরো বলেন, স্যানিটেশন কর্মসূচিতে ‘সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা’ অর্জনে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে যা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশ ২০৩০ সালের মধ্যে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা’ অর্জনে স্যানিটেশন ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করছে। সকলের জন্য স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন নিশ্চিতে স্যানিটারি ল্যাট্রিন নির্মাণ, পাবলিক ও কমিউনিটি টয়লেট স্থাপনসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াশ ব্লক স্থাপন করা হচ্ছে। এ ছাড়া স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করতে পয়ঃনিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা উন্নয়নে নানাবিধ কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। দেশব্যাপী সুষ্ঠু স্যানিটেশন ব্যবস্থাপনায় সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে।