পাইকগাছায় বাঁধ ভেঙে তিন গ্রাম প্লাবিত

29

খুলনার পাইকগাছা উপজেলার দেলুটি ইউনিয়নের তিনটি গ্রাম পূর্ণিমার অস্বাভাবিক জোয়ারের পানির তোড়ে জলমহালের বাঁধ  ভেঙে প্লাবিত হয়ে পড়েছে। আমনের বীজতলাসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি ভেসে গেছে মাছের ঘের। পানিতে ঘরবন্দী হয়ে পড়েছে অন্তত পাঁচ শতাধিক পরিবার। শুক্রবার স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে প্রাথমিকভাবে বাঁধটি মেরামত করা হলেও আতঙ্কে রয়েছেন এলাকাবাসী।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় আম্পানে দেলুটি ইউনিয়নের শিবসা নদীর গেওয়াবুনিয়া ও কালিনগরের ওয়াপদার বাঁধ ভেঙে অনেক এলাকা প্লাবিত হয়। যার রেশ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই বৃহস্পতিবার দুপুরে জোয়ারের পানির তোড়ে চকরিবকরি নদীর উত্তর মাথার ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধটি ভেঙে যায়। এতে গেওয়াবুনিয়া, পারমধুখালী ও চকরিবকরি এলাকা পানিতে প্লাবিত হয়।

স্থানীয় স্কুল শিক্ষক সুকৃতি মোহন সরকার বলেন, ‘চকরিবকরি নদীর উত্তর মাথার বাঁধ জোয়ারের পানিতে ভেঙে গিয়ে গেউয়াবুনিয়া, পারমধুখালী ও চকরিবকরি গ্রামের বাড়িঘর, মাছের ঘের পানিতে তলিয়ে গেছে। গ্রামের মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়েছে।’ 

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল জানান, আনাম নামে এক ব্যক্তি চকরিবকরি নদীর উত্তর মাথায় ৩৭ একরের জলমহলটিতে মাছ চাষ করে আসছেন। কিন্তু এর উত্তর ও দক্ষিণ পাশের দুটি বাঁধ দীর্ঘদিন মেরামত না করায় সেটি মারাত্মক ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়ে। ফলে জোয়ারের পানির চাপে উত্তর পাশের বাঁধ ভেঙে তিন গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

তবে স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. আক্তারুজ্জামান বাবু ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকীর নির্দেশনায় শুক্রবার দিনভর এলাকাবাসীর সহায়তায় ও তাদের স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধটি আপাতত মেরামত করা সম্ভব হয়েছে বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান।

দ্রুত সময়ের মধ্যে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।