আইসোলেট লোহাগড়া: করোনা রোগীর ঘরে পৌঁছাল মাশরাফীর অক্সিজেন সিলিন্ডার

230

নড়াইল কণ্ঠ : লোহাগড়ার শিশু কল্যাণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামিমা ইয়াসমিন নূরানী এবং সাংবাদিক কাজী আশরাফের মা জিনাত রেহানার অবস্থার অবনতি জানতে পেরে মানবিক এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা তাৎক্ষণিক ২টি অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ অক্সিমিটার বাড়িতে গিয়ে পৌঁছিয়ে দিয়েছেন। গতকাল বুধবার (৭ জুলাই) জরুরিভিত্তিতে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের অ্যাম্বুলেন্সে করে ফাউন্ডেশনের নিবেদিত কর্মী হায়দার আপণ বাড়ি বাড়ি গিয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ অক্সিমিটার পৌঁছিয়ে দেন।

করোনা পজিটিভ আক্রান্তরা হলেন, লোহাগড়ার সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম হায়াতুজ্জামান (৫৫) ও তার স্বহধর্মীনি লোহাগড়া শিশু কল্যাণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামিমা ইয়াসমিন নূরানী (৪৫) এবং সাংবাদিক কাজী আশরাফের মা জিনাত রেহানা (৫৬), বড় মেয়ে কাজী পুষ্পিতা (১৫) এবং কাজী আশরাফ নিজেই।

এরমধ্যে লোহাগড়ার নিজ বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন লোহাগড়ার সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম হায়াতুজ্জামান (৫৫) ও তার স্বহধর্মীনি শামিমা ইয়াসমিন নূরানী (৪৫) এবং কাজী আশরাফ ও তাঁর মা নড়াইল সদর কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। কাজী আশরাফ বড় মেয়ে কাজী পুষ্পিতা (১৫) লোহাগড়ায় নিজ বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা লোহাগড়ায় করোনা প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় অনলাইনে যুক্ত হয়ে লোহাগড়াকে পূর্ণ আইসোলেট করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান গত সোমবার ৬ জুলাই। আজ বুধবার (৮ জুলাই) হতে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সেদিন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা ঘোষণা দিয়েছিলেন নড়াইল সদর ও লোহাগড়ার মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন ১০ জুলাই থেকে দুটি বুথের মাধ্যমে করোনা আক্রান্ত রোগীদের প্রয়োজনে অক্সিমিটার ও অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করবে। এলাকার মানুষের জরুরি প্রয়োজনে নড়াইল এক্সপ্রেসফাউন্ডেশন গতকাল মঙ্গলবার (০৭ জুলাই) থেকেই এই কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছে।

করোনা রোগী লোহাগড়ার সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম হায়াতুজ্জামান অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ অক্সিমিটার পেয়ে জানান, আমাদের প্রিয় এমপি মাশরাফী আমার ও আমার স্ত্রীর করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর পেয়ে আমার ও আমার স্ত্রীর সাথে মোবাইলে কথা বলেছেন এবং আমাদের সাহস দিয়েছেন। আমাদের এহেন পরিস্থিতি বিবেচনা করে মানবিক এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ অক্সিমিটার সরবরাহ করে যে উপকার করেছেন তা ভাষায় বর্ণনা করতে পারবো না। যারা এধরনের সমস্যায় পড়েছেন তারা ছাড়া অন্য কেউ বুঝবেন না। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েও আমাদের কথা ভেবে এধরণের সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে এসছেন। আমরা আল্লাহ পাকের কাছে তাঁর দ্রুত সুস্থ্যতা কামনা করি।

করোনায় আক্রান্ত সাংবাদিক কাজী আশরাফ জানান, আমার মা জিনাত রেহানা করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর শুনে মাশরাফী ভাই আমাকে ফোন দিয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে বলেন, কালই আপনার ওখানে নড়াইল এক্রপ্রেস ফাউন্ডেশনের কেউ আপনার মায়ের জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ অক্সিমিটার পৌঁছিয়ে দিয়ে আসবে। গতকালই লোহাগড়ায় আমার বাসাতে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে যায়। আমরা সকলে মাশরাফী ভাইয়ের জন্য আল্লাহ্রর কাছে দোয়া করি তিনি যেন দ্রুত সুস্থ্য হয়ে উঠেন।

জানাগেছে, নড়াইল এক্রপ্রেস ফাউন্ডেশন অক্সিমিটার ও অক্সিজেন সিলিন্ডার কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের সেবার কার্যক্রম ১০ জুলাই থেকে পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু করবে। বিষয়টি বিস্তারিত নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন ফেইসবুক পেইজে বিস্তারিত লাইভে পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য, এ কার্যক্রম ২টি সহযোগি সংগঠন সহায়তা করছে। একটি হলো কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের প্লাজমা নিয়ে কাজ করছে কামব্যাক সোসাইটি এবং অন্যটি হলো ‘বাঁধন’ (স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন) নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ ইউনিট।