সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গ নিয়ে ইটভাটা শ্রমিকের মৃত্যু

67

মাধব দত্ত, সাতক্ষীরা : করোনা উপসর্গ নিয়ে এক ইটভাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার চৌবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রশাসন ওই বাড়ি লক ডাউন করেছে।

মৃতের নাম খায়রুল ইসলাম (৫৫)। তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ভোমরা ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে।

ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান জানান, খায়রুল ইসলাম একজন ভ্যানচালক। তিনি চট্টগ্রামের একটি ভাটায় কাজ করতেন। গত ২৬ এপ্রিল তিনিসহ পাঁচজন বাড়িতে ফেরেন। বাড়ি ফিরে তিনি কোন কোয়ান্টোইন মানতেন না। নিজের ইচ্ছামত চলাফেরা করতেন। গলা ব্যাথা, জ্বর ও পাতলা পায়খানাসহ বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দেওয়ায় স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা নিতেন তিনি। এরপর মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে তিনি বাড়িতেই মারা যান।

তবে মৃতের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, তার পিতার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন। আর সর্দি কাশি তার দীর্ঘদিনের রোগ।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ জয়ন্ত সরকার জানান, দেরীতে মৃত্যুর খবর পাওয়ায় নমুনা সংগ্রহ না করেই মেডিকেল টিম বুধবার সকাল ১১ টায় ঘটনাস্থলে যেয়ে লাশ দাফনের অনুমতি দিয়েছে।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবাশীষ চৌধুরী জানান, খায়রুল ইসলামের বাড়ি লক ডাউন করা হয়েছে।