পটুয়াখালীতে করোনা শনাক্ত হওয়ায় স্বাস্থ্য স্বাস্থ্যকর্মী ও তার স্বামীর ওপর হামলা

95

নড়াইল কণ্ঠ :বৈশ্বিক মহামারি (কোভিড-১৯) করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ায় পটুয়াখালীর বাউফলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী স্বাস্থ্য সহকারীকে দায়ী করেছেন করোনা আক্রান্ত পরিবারের সদস্য ও স্বজনরা। এ ঘটনার জের ধরে গতকাল মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) রাতে তারা ওই স্বাস্থ্য সহকারীর স্বামীর ওপর হামলা চালান ও তাকে লাঞ্ছিত করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নারায়ণগঞ্জ থেকে ফিরে আসা এ যুবকের করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ায় এ ঘটনা ঘটায়। এ

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, স্বাস্থ্য সহকারী ও তার স্বামীর ওপর হামলা চালানোর অভিযোগের খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনিচুর রহমান ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার সাহার নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসনের একটি দল ঘটনাস্থলে আসে। তারা করোনায় আক্রান্ত রোগীসহ ১০ জনকে আটক করেন। পরে করোনায় আক্রান্ত রোগীকে প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে এবং তার সংস্পর্শে আসা ৯ স্বজনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার সাহা বলেন, ‘উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা ২৪ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত রোগীর বাড়িতে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পাঠায়। ২৬ এপ্রিল বরিশাল থেকে প্রতিবেদন আসে ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। কিন্তু করোনায় আক্রান্ত রোগী ও তার স্বজনেরা মানতে নারাজ যে ওই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনার জন্য তারা আমার স্বাস্থ্যকর্মীকে দায়ী করেন এবং তার স্বামী ও তার ওপর চড়াও হন।’

তিনি আরও বলেন, করোনায় আক্রান্ত রোগী কোনো নিয়মকানুনের তোয়াক্কা না করে বাইরে ঘোরাঘুরি করেন এবং তার স্বজনদের সংস্পর্শে যান। এ ঘটনা জানতে পেরে যিনি করোনায় আক্রান্ত, তাকে আইসোলেশনে এবং যারা তার সংস্পর্শে এসেছেন, তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। হামলা চালানোর বিষয়ে পরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।