বিশ্ব ইজতেমা শুরু কাল,হাজারো মুসল্লির ঢল

88

নড়াইল কণ্ঠ ডস্ক : বৃহস্পতিবার ইজতেমা ময়দানের পাশে বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্পগুলো উদ্বোধন করা হয়। এবার পুরো ইজতেমা ময়দান এলইডি লাইট দিয়ে সজ্জিত করেছে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন। শেষ মুহূর্তে মুসল্লিদের যাতায়তের পথগুলো মেরামত, ময়দান পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা করা হয়েছে। ইজতেমা ময়দানে উপস্থিত থেকে মুসল্লিদের সুবিধার সার্বিক বিষয় দেখভাল করছেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম।
ইজতেমা ময়দানে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। পুরো ইজতেমা ময়দানের চারপাশে সিসি ক্যামেরা রয়েছে। মুসল্লিদের নিরাপত্তা দিতে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে আইন শৃঙ্খখলা বাহিনীর সদস্যরা। এছাড়া ইজতেমায় যোগ দিতে টঙ্গীমুখী মুসল্লিদের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে যানবাহন পার্কিং ও ডাইভারশন সংক্রান্ত কিছু নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।
বিশ্ব ইজতেমার মাওলানা জুবায়ের এর অনুসারী মুরব্বি ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজুর রহমান জানান, ময়দানকে মোট ৯২টি খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। দেশের ৬৪ জেলার মুসল্লিরা অংশ নিচ্ছেন। তাদের জন্য ৮৭টি খিত্তা নির্ধারণ করা হয়েছে। পাঁচটি খিত্তা সংরক্ষিত রাখা হয়েছে। কোনো জেলার মুসল্লি বেশি হলে অথবা মাদরাসা ছাত্রদের ওই খিত্তাগুলোতে দেয়া হবে। বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে দেশের মুসল্লিদের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা অংশ নেবেন। বিদেশি মেহমানদের জন্য বিশ্ব ইজতেমা ময়দানের উত্তর-পশ্চিম পাশে নিবাস তৈরি করা হয়েছে। সেখানে তাদের জন্য গরম পানি, রান্নার জন্য গ্যাস, উন্নত টয়লেটসহ নানা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সাল থেকে তাবলিগ জামাত বিশ্ব ইজতেমার আয়োজন করে আসছে। ইজতেমা মাঠের চাপ কমাতে এবং নিরাপত্তা ও উন্নত ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে ২০১১ সাল থেকে দুই ধাপে ইজতেমার আয়োজন হয়ে আসছে। এবারের বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ১৭ থেকে ১৯ জানুয়ারি।