• 19 Jun, 2024

২০ ফেব্রুয়ারি ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে নড়াইলে সাংবাদিক ওরিয়েন্টশন

২০ ফেব্রুয়ারি ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে নড়াইলে সাংবাদিক ওরিয়েন্টশন

‘ভিটামিন এ খাওয়ান, শিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে নড়াইলে সাংবাদিক ওরিয়েন্টশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টার  ‘ভিটামিন  খাওয়ানশিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় ভিটামিন’ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে নড়াইলে সাংবাদিক ওরিয়েন্টশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারিদুপুরে সিভিল সার্জন অফিসের সভাকক্ষে  কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

সিভিল সার্জন অফিসের আয়োজনে  জাতীয় পুষ্টি সেবা  জনস্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানের বাস্তবায়নে নড়াইলে নবাগত সিভিল সার্জন ডাসাজেদা বেগমের সভাপতিত্বে ভিটামিন  প্লাস ক্যাম্পেইন সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত তুলে ধরে বক্তব্য রাখেনসিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাসুব্রত নাগ।তিনি ভিটামিন  প্লাস ক্যাম্পেইনের উদ্দেশ্যে  এর প্রয়োজনীয়তা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

কর্মশালায় বলা হয় আগামী ২০ ফেব্রুয়ারী ১দিনের জন্য সারাদেশে টিকাদানকেন্দ্র এবং স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোতে  মাস থেকে  বছরের কম বয়সী সকল শিশুকে ভিটামিন  প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।জাতীয় কর্মসূচির হিসেবে নড়াইলেও  কর্মসূচি পালন করা হবে।

এসময় সিভিল সার্জন ডাসাজেদা বেগম সাংবাদিকদের মাধ্যমে জানানশিশুর সুস্থতা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নির্ধারিত সময়ে টিকাদানকেন্দ্র এবং স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোতে  মাস থেকে  বছরের কম বয়সী সকল শিশুকে ভিটামিন  প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য তাকে (শিশুকেটিকাদান কেন্দ্রে নিয়ে আসার অনুরোধ জানান।

জানাগেছে এবার নড়াইল জেলায়  ক্যাম্পেইনে ১০২০টি কেন্দ্রের মাধ্যমে জেলায় মোট ৯৫ হাজার ১৪৭জন শিশুকে ভিটামিন  প্লাস খাওয়ানো হবে।এরমধ্যে ০৬-১১ মাস বয়সী ১১ হাজার ৫৭১ জন শিশুকে নীল রঙের এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৮৩ হাজার ৫৭৬ জন শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন  প্লাস খাওয়ানো হবে।এছাড়া  সময় শিশুর বয়স  মাস পূর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি ঘরে তৈরি সুষম খাবার খাওয়ানোর বিষয়ে পুষ্টিবার্তা প্রচার করা হবে।

সিএস আরও জানানভিটামিন  প্লাস ক্যাম্পেইন চলাকালিন সময়ে সিভিল সার্জন অফিসে একটি হট নম্বর খোলা হবে।মাঠ পর্যায় কোন অসুবিধা সৃষ্টি হলে বা কোন জরুরি তথ্য জানা প্রয়োজন হলে মিডিয়া কর্মীসহ যে কোন সচেতন নাগরিক আপনারা সকলে ওই নম্বরে কল করে জেনে নিতে পারবেন।নম্বরটি পরে জানিয়ে দেয়া হবে।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য  পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তাসিভিল সার্জন অফিসের ইপিআই কর্মকর্তা হারাধন মজুমদারসহ জেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট  ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।