এবার জয়পুরের রাস্তায় পাঁপড় বেচলেন হৃতিক!

78

অভিনয়ের পাশাপাশি তাঁর লুক নিয়েও কম চর্চা হয় না। নীল চোখ আর পেশিবহুল শরীরের প্রেমে এখনও অনেকেই মশগুল। সে কারণেই বলিউডে গ্রিক গডের তকমা পেয়েছেন হৃতিক রোশন। এমন সুদর্শন নায়ক প্রকাশ্য রাস্তায় সাইকেলে চড়ে পাঁপড় বিক্রি করে বেড়ালেন, অথচ কেউ চিনতেই পারলেন না। আজ্ঞে হ্যাঁ, এমনটাই ঘটেছে জয়পুরের রাস্তায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় হৃতিকের এই কীর্তি দেখে চমকে গিয়েছেন নেটিজেনরাও।
বেশ কয়েকদিন ধরেই ‘সুপার ৩০’র শুটিং করছেন হৃতিক। ‘সুপার ৩০’-র অঙ্কের শিক্ষক আনন্দ কুমারের চরিত্রে দেখা যাবে তাঁকে। ২০০২ সালে ‘সুপার ৩০’-র অভিযান শুরু করেছিলেন আনন্দ কুমার। উদ্দেশ্য ছিল দুঃস্থ পরিবারের মেধাবি পড়ুয়াদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণ দেওয়া। আর আইআইটি-র মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার উপযুক্ত করে তোলা। প্রথম বছরেই ৩০ জনের মধ্যে ১৮ জন পড়ুয়া আইআইটি-র প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিলেন। তারপর আর থেমে থাকেনি ‘সুপার ৩০’-র যাত্রা। ২০১৭ সালে পরিস্থিতি এমন দাঁড়ায় ৩০ জনের মধ্যে ৩০ জনই আইআইটির প্রবেশিকা পরীক্ষায় পাশ করেন। সাধারণ মানুষের এই অসাধারণ কাহিনি পর্দায় তুলে ধরতে চলেছেন পরিচালক বিকাশ বহেল। ছবির চিত্রনাট্যও তিনিই লিখেছিলেন।

আর আনন্দ কুমারের চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে গিয়েই নিজেকে সম্পূর্ণ পালটে ফেলেছেন হৃতিক। এলোমেলো চুল ও মুখ ভরতি দাঁড়ি গিয়ে এভাবেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন রাজস্থানের প্রত্যন্ত এলাকায়। হৃতিকের লুক দেখে অভিভূত আনন্দও। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, হৃতিকের লুক দেখার পর নিজের কলেজ জীবনের একটি ছবি বের করেছিলেন তিনি। হৃতিক যেন সেই সময়কার প্রতিচ্ছবি হয়ে উঠেছেন। তাঁর কাহিনির জন্য যেভাবে অভিনেতা নিজেকে সঁপে দিয়েছেন, তাতে মুগ্ধ আনন্দ। নভেম্বর মাসে ছবিটি দেখার জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছেন তিনিও।
প্রসঙ্গত, এর আগে ছদ্মবেশে এভাবে রাস্তায় ঘুরতে দেখা গিয়েছিল আমির খানকে। ‘থ্রি ইডিয়ট’-এর সময় এই কীর্তি করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। ফ্যান সেজে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বাড়িতে ঢোকার চেষ্টাও করেছিলেন তিনি। তবে হৃতিক এমন কোনও চেষ্টা করেননি। তিনি কেবল রিয়েল লোকেশনে শুটিং করেছেন মাত্র।