Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

অসমের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাস্যাডর তিনি। তা সত্ত্বেও গত বছর সে রাজ্যের বন্যার ভয়াবহ অবস্থা দেখেও চুপ ছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। যার ফলে বিতর্কের মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। বছর ঘুরতেই তাঁকে নিয়ে শুরু হল নয়া বিতর্ক। এবার অসমের কংগ্রেস নেতাদের বিরাগভাজন হলেন বি-টাউনের অন্যতম সফল অভিনেত্রী।
এবার কী অপরাধ করে বসলেন পিগি চপস? সম্প্রতি প্রিয়াঙ্কার ছবি দিয়ে নতুন বছরের একটি ক্যালেন্ডার প্রকাশ করেছে অসম পর্যটন দপ্তর। আর সেখানে অভিনেত্রীর পোশাক নিয়ে এবার উঠেছে প্রশ্ন। কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ, ছবিতে প্রিয়াঙ্কার বক্ষবিভাজিকা অত্যন্ত স্পষ্ট। সরকারি ক্যালেন্ডারে এমন ছবি বেশ দৃষ্টিকটু। মারিয়ানির কংগ্রেস বিধায়ক রূপজ্যোতি কুর্মি, সরুপাথরের বিধায়ক রোজলিন তিরকে এবং বোকোর বিধায়ক নন্দিতা দাস বিধানসভায় প্রিয়াঙ্কাকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাস্যাডরের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তোলেন। তাঁদের অভিযোগ, অভিনেত্রীর স্বল্পবসনের ছবিটি রাজ্যের সংস্কৃতিবিরোধী। মারিয়ানির কংগ্রেস বিধায়ক রূপজ্যোতি কুর্মি বলেন, “অহমিয়া সমাজের ঐতিহ্য ও মর্যাদা অক্ষুণ্ন রাখার দায়িত্ব প্রশাসনেরই। আর সেখানে সরকারি ক্যালেন্ডারে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ফ্রক পরে রয়েছেন। যা অসমের পোশাক নয়। এর বদলে রাজ্যের ট্র্যাডিশনাল পোশাক মেখলা ব্যবহার করাই যেত। কিন্তু তেমনটা হয়নি। তাই ছবিটি বেশ দৃষ্টিকটু। আর সেই কারণেই আমরা এর বিরোধিতা করছি।”
তবে অসম পর্যটন দপ্তরের চেয়ারম্যান জয়ন্ত মাল্ল বরুয়া সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ক্যালেন্ডারে আপত্তিকর কিছুই নেই। তাঁর কথায়, অসমকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গোটা দুনিয়ায় জনপ্রিয় করে তোলাই এই ক্যালেন্ডারের উদ্দেশ্য। অনেক আন্তর্জাতিক ট্যুর অপারেটরদের কাছেও এটি পৌঁছে দেওয়া হবে। আর প্রিয়াঙ্কার মতো বিশ্বখ্যাত নায়িকাই এই প্রচারের আদর্শ মুখ। তাছাড়া ক্যালেন্ডারে কোনওভাবেই অসমের সংস্কৃতিকে অসম্মান করা হয়নি। রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অসমে প্রিয়াঙ্কার ভবিষ্যৎ দীর্ঘজীবী হয় কিনা, সেটাই দেখার।