কালিয়া নির্বাচন বর্জন, পুন:নির্বাচনের দাবি, নড়াইল পৌরসভায় নৌকা বিজয়ের সম্ভবনা

109

নড়াইল কণ্ঠ : কালিয়া পৌর নির্বাচন বর্জন এবং পুন:নির্বাচনের দাবি করেছে আ’লীগ মনোনীত পৌর মেয়র পদপ্রার্থী ওয়াহিদুজ্জামান হীরা। বিকাল ৩টার দিকে ওয়াহিদুজ্জামান হীরা নিজে নড়াইল প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকদের সামনে এ ঘোষণা দেয়। তিনি সাংবাদিকদের জানান, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী গ্র“পের মেয়র প্রাথীর্র নিশ্চিত পরাজয় জেনে নড়াইল-১ আসনের এমপি কবিরুল হক মুক্তি তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্র দখল, ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আসতে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে এবং সুষ্ঠ নির্বাচন করতে বাধা সৃষ্টি করে। প্রশাসনের ভুমিকা ছিল নিরব। এ সময় দলের বিভিন্ন নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন। এ দিকে নড়াইল পৌরসভায় দ্বিমুখি লড়াইয়ে মধ্যদিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী নৌকা বিজয় সম্ভাবনা রয়েছে ৯০ভাগ।

বুধবার সকাল ৮টা হতে নড়াইল দু’টি পৌরসভা নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। ভোট গ্রহণ একটানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলে। কালিয়া একটি ভোটকেন্দ্র স্থগিত, ২জনকে এবং নড়াইলে ৬জনকে ৬মাস করে জেল দেয়া হয়। নড়াইল পৌরসভায় ১৪টি এবং কালিয়া ৯টি ভোট কেন্দ্রের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হয়। কালিয়া কয়েক দফা ধাওয়া-পালটা ধাওয়া, মারামারির ঘটনা ঘটে। নড়াইল পৌরসভায় ছোট-খাট কয়েকটি ঘটনা ছাড়া উল্লেযোগ্য তেমন কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। নির্বাচন সুষ্ঠ হয়েছে।

নড়াইল পৌরসভা :
আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন বিশ্বাস (নৌকা), বিএনপির মনোনীত প্রার্থী জুলফিকার আলী (ধানের শীষ), বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পারভেজ আলম বাচ্চু (হাতুড়ি), জাসদের সৈয়দ আরিফুল ইসলাম পান্ত (মশাল), জাতীয় পাটির (এরশাদ) অ্যাডভোকেট ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ (লাঙ্গল), এনপিপি আনোয়ার হোসেন খান ( আম ) প্রতিকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা।

এছাড়া আ’লীগের বিদ্রোহী গ্রুপের স্বতন্ত্রপার্থী সাবেক জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস (নারকেল গাছ) ও জেলা বাস ও মিনিবাস পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি যুব লীগ নেতা সরদার আলমগীর হোসেন আলম ( জগ) প্রতিকে নির্বাচন করছেন।
এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৯ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১০ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানাগেছে, নড়াইল পৌরসভায় মোট ভোটার ২৯ হাজার ৪’শত ৫০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৪’শত ৮৮ জন এবং মহিলা ভোটার ১৪ হাজার ৯’শত ৬২ জন। নির্বাচনে ৯ টি ওয়ার্ডে ভোট গ্রহনে কেন্দ্র ১৪টি, কক্ষ ৯০টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে প্রিজাইডং অফিসার ১৪ জন, সহকারী প্রিজাইডং অফিসার ৯০ জন এবং পোলিং এজেন্ট ১৮০ জন নিয়োগ করা হয়।

কালিয়া পৌরসভা :
কালিয়া পৌরসভায় ৭ জন মেয়র প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের ৫ জন এবং বিএনপির রয়েছে ২ জন প্রার্থী। এর মধ্যে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী কালিয়া উপজেলা আ’লীগের নেতা ওয়াহিদুজ্জামান হীরা(নৗকা), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী কালিয়া উপলো বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এসএম ওয়াহিদুজ্জামান মিলু (ধানের শীষ)।

স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসাবে বর্তমান মেয়র বিএম এমদাদুল হক টুলু(নারকেল গাছ), ফকির মুশফিকুর রহমান লিটন (চামচ), আওয়ামীগ নেতা শেখ লায়েক হোসেন (মোবাইল ফোন), সোহেলী পারভীন নিরি (জগ) ও এস এম একরাম রেজা (হ্যাঙ্গার) প্রতিকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে।

কালিয়া পৌরসভায় মোট ভোটার ১৪ হাজার একশত ৪৪ জন এর মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ১২ জন এবং মহিলা ৭ হাজার একশত ৩২ জন। নির্বাচনে ৯ টি ওয়ার্ডের ৯ টি কেন্দ্রের ৪৯ কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সুষ্ঠভাবে নির্বাচন পরিচালনার জন্য প্রিজাইডং অফিসার ৯ জন, সহকারী প্রিজাইডং অফিসার ৪৯ জন এবং পোলিং এজেন্ট ৯৮ জন নিয়োগ করা হয়।