নড়াইলে ছাগলের খামারে অগ্নিকান্ড, মৃত্যু ১৫০

99

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের কালিয়া উপজেলার সালামাবাদ ইউনিয়নের ভাউড়িরচর গ্রামের জামাল হোসেনের ছাগলের খামারে আগুন লেগে প্রায় দেড়শত ছাগলের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার (২৮ জানুয়ারী) দিনগত রাত ২টার দিকে এ অগ্নিকান্ড ঘটে। বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে এ অগ্নিকান্ড ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
ওই এলাকার শিক্ষক গাজী সাজ্জাদুল হক পিকুল হোসেন জানান, ভাউড়িরচর গ্রামের জামাল হোসেনের ছাগলের খামারে রবিবার দিনগত রাত ২টার দিকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এসময় স্থানীয় লোকজন আগুন দেখে চিৎকার দিয়ে এগিয়ে এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। আধাঘন্টার অধিক সময় ধরে চেষ্টারপর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।
ক্ষতিগ্রস্থ জামাল শেখের ভাই কামাল হোসেন জানান, জানান, তার ভাইয়ের খামারের একটি ছাগলের দুটি বাচ্চা হয়েছে। শীতের কষ্ট থেকে বাচ্চা দুটির জন্য একটি বিদ্যুতের বাল্ব নিচের দিকে নামিয়ে দেন। ধারণা করা হচ্ছে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকেই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। খামারে ছোটবড় দিয়ে ১৪৫টি ছাগল ছিলো। এর মধ্যে দ্ইুটি ছাগল বেঁচে আছে। বাকি ১৪৩টি সব ছাগল পুড়ে মারা গেছে। এতে ১৫লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে ।
জামাল হোসেনের ছাগলের খামারটি তার বাড়ি থেকে ৪শ গজ দূরে। এছাড়া তার একটি টার্কি মুরগী ও একটি পাকিস্তানী মুরগীর খামার রয়েছে।
ওই গ্রামের এইচ এম মাসুদ শুভ জানান, কালিয়া উপজেলায় কোন ফার্য়ার সার্ভিস স্টেশন নেই। আগুন লাগলে নড়াইল শহর থেকে প্রায় ৪০ কিলোমিটার দূরে এবং নদী পারপারের ঝামেলা থাকায় অগ্নিকান্ড ঘটলে এক ঘন্টায়ও পৌছাঁতে পারে না। ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি হয়ে থাকে।
সালামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামীম আহম্মেদ জানান, তিনি খবরটি শুনেছেন। ক্ষতিগ্রস্থ খামার মালিককে কোন সহযোগিতা করা যায় কিনা সে ব্যাপারেও চেষ্টা করবেন।