সিএইচসিপি’র চাকুরি জাতীয়করণের দাবিতে নড়াইলে অবস্থান কর্মবিরতি

74

নড়াইল কণ্ঠ : চাকুরি জাতীয়করণের দাবিতে নড়াইল জেলার ৮৯টি কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডাররা (সিএইচসিপি) অবস্থান কর্মবিরতি পালন করেছে।
মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারী) সিভিল সার্জন অফিসের সামনে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এ কর্মসূচী শুরু পালন করেন তারা। এছাড়া সিভিল সার্জন ডাঃ আসাদ-উজ-জামান মুন্সী’র মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন সিএইচসিপিরা।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি সাগর সেন, সাধারণ সম্পাদক নয়ন কুমার সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাত হোসেন, নড়াইল সদরের সভাপতি তরিকুল ইসলাম, কালিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি রাজীব রাহা, লোহাগড়া শাখার সভাপতি ইকবাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আলীমুল হোসেন, সিএইচসিপি অমিত কুমার অধিকারী, উপদেষ্টা ফরিদ হোসেন, মাহমুদা সুলতানা, শাহীনুর খানম প্রমুখ।
বাংলাদেশ কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন নড়াইল জেলা শাখার আয়োজনে চাকুরি জাতীয়করণের দাবি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ কমিউনিটি হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি সাগর সেন, সাধারণ সম্পাদক নয়ন কুমার সরকার, উপদেষ্টা ফরিদ হোসেন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ২০১১ সালে বাংলাদেশ সরকার কমিউনিটি ক্লিনিক উজ্জ্বীবিত করার জন্য সিএইচসিপি নিয়োগ দেন। ২০১৩ সালে সিএইসিপিদের সরকারীকরণের জন্য নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নেন। ২০১৭ সালে মহামান্য হাইকোর্ট সিএইচসিপিদের পক্ষে রায় দিয়েছে। কিন্তু এখনও জাতীয়করণ করা হয়নি। সারাদেশে কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত সিএইচসিপিরা এক দফা এক দাবি নিয়ে মাঠে নেমেছে। জাতীয়করণ করা না হলে আমরা ঘরে ফিরে যাবো না। দাবি আদায় না হলে আগামি ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ঢাকায় আমরণ অনশন কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দেয়া হয়।
এর আগে গত ২০-২২ জানুয়ারী পর্যন্ত একই দাবিতে উপজেলা পর্যায়ে তিনদিনের অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন সিএইচসিপিরা ।
এদিকে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাধারণ মানুষের সেবায় নিয়োজিত কমিউনিটি ক্লিনিকগুলি বন্ধ থাকায় হাজার হাজার রোগীরা চিকিৎসা সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন।