রংপুরের শিরোপা জয় ঢাকাকে হারিয়ে

122

নড়াইল কণ্ঠ : বিন মর্তুজা, যার তুলনা তিনি শুধু নিজেই। প্রথম তিন আসরের চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক নড়াইলের সাহসী সেনাপতি। মাশরাফি কেন আর দশজনের থেকে আলাদা সেটা এর আগেও অনেকবার মানুষ দেখেছে। দেখলো আরও একবার। প্রথমবারের মতো বিপিএলের ফাইনালে উঠে দাপটের সঙ্গেই শিরোপা জিতে নিল রংপুর রাইডার্স। গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটসকে স্রেফ গুঁড়িয়ে দিয়েছে মাশরাফির দল। ক্রিস গেইলের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে ২০৭ রানের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রানে থামে সাকিবদের ইনিংস।

দুর্দান্ত অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ৫৭ রানের জয়ে বাঁধভাঙা উল্লাসে মাতে রংপুর শিবির। নতুন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মধ্য দিয়ে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক জমমজাট টি-২০ টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরের পর্দা নামলো।
অধিনায়ক হিসেবে চতুর্থবারের (দু’বার ঢাকা ও কুমিল্লাকে একবার) মতো ট্রফির স্বাদ পেলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। রংপুরের দায়িত্ব কাঁধে নিয়েই এক বছরের বিরতিতে আবারো সেরার আসনে বসলেন বাংলাদেশ দলের ওয়ানডে অধিনায়ক।

প্রথম কোয়ালিফায়ারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৯৫ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সরাসরি ফাইনালে এসে রংপুরের কাছে রীতিমতো অসহায় আত্মসমর্পণই করেছে ঢাকা। চতুর্থ স্থানে থেকে লিগ পর্ব শেষ করা টম মুডির শিষ্যরা প্লে-অফের দুই ম্যাচের (এলিমিনেটর ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার) পর পঞ্চম আসরের শিরোপা নির্ধারণীতেও ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুণ্যে প্রদর্শন করলো।
মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রাইডার্সের রানের চাপে শুরু থেকে উইকেট হারিয়ে খেই হারিয়ে ফেলে ডায়নামাইটস। ১ রানেই দুই উইকেটের পতন ঘটে। ২৯ রানে চার উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে তারা। সাকিব-জহুরুল জুটিতে (৪২) ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলেও বেশিদূর এগোতে পারেনি। দলীয় ৭১ রানে বিদায় নেন সাকিব অাল হাসান (১৬ বলে ২৬)।
অর্ধশতক হাঁকিয়ে আউট হন জহুরুল ইসলাম (৫০)। ওপেনার এভিন লুইস ১৫, কাইরন পোলার্ড ৫, মোসাদ্দেক হোসেন ১, শহীদ আফ্রিদি ৮, সুনীল নারাইন ১৪ রানে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন।
দু’টি করে উইকেট লাভ করেন সোহাগ গাজী, ইসুরু উদানা ও নাজমুল ইসলাম অপু। একটি করে নেন মাশরাফি, রবি বোপারা ও রুবেল হোসেন। শেষ ওভারে বোলিংয়ে আসেন ম্যাচ সেরা গেইল। তবে শেষ উইকেটটি নিতে পারেননি। আবু হায়দার রনি ৯ ও খালেদ আহমেদ ৮ রানে অপরাজিত থাকেন।
এর আগে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ঢাকা দলপতি সাকিব। এটিই ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দেয়! ১ উইকেট হারিয়েই স্কোরবোর্ডে ২০৬ রান তোলে রংপুর। প্রথম ও একমাত্র অধিনায়ক হিসেবে চার চার বারের শিরোপা জয়ী অধিনায়ক হলেন। মাশরাফির পক্ষেই এমন কীর্তি গড়া সম্ভব!