নড়াইল হানাদার মুক্তদিবস পালিত

149

নড়াইল কণ্ঠ : নানা কমসূচির মধ্য দিয়ে নড়াইলে পাকহানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে রবিবার (১০ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় নড়াইল জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ড ও জেলা প্রশাসনের আয়োজনে পুরাতন বাসটার্মিনালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মোরালে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্যদিয়ে দিবসটির শুভসূচনা করা হয়। পরে শহরে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রা শেয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
এরপর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক মো: এমদাদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত ডিআইজি) সরদার রকিবুল ইসলাম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো: সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজী মাহাবুবুর রশীদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কামরুল আরিফ, সাবেক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শরীফ হুমায়ূন কবীর, নড়াইল পৌরসভার মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: গোলাম কবির, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদরে ডেপুটি অ্যাডভোকেট এস এ মতিন, কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: তবিবর রহমান, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো: আলমগীর সিদ্দিকী প্রমুখ।
দিবসটি উপলক্ষে সকাল ১০টায় চিত্রা থিয়েটার ও জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে সুলতান মঞ্চ চত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের করে এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডে পাশে গণকবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। পরে দুপর ২টায় রূপগঞ্জ বাঁধাঘাট এলাকায় সাবেক পুলিশ লাইন এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডে ডাক বাংলোর সামনে যেখানে পাকা বাহিনীর দোসর রাজাকার-মিলিশিয়াদের সঙ্গে যুদ্ধ করে মুক্তিযোদ্ধারা নড়াইলকে শত্রুমুক্ত করেছিল চিত্রা থিয়েটারের কর্মীরা ৮ হাজার ৬শত রাউন্ড কার্টিজ (আতস বাজি)ব্যবহারের মাধ্যমে তৎকালিন সেই যুদ্ধ প্রদর্শন করে। এ সময় হাজার হাজার মানুষ পাকহানাদার ও মুক্তি বাহিনীর সমুখযুদ্ধ, পাকহানাদার ও তাদের দোসর রাজাকার মুক্তি বাহিনীর নিকট আত্মসমর্থন এবং অস্ত্র জমাদানের দৃশ্য অবলকন করেন।
পরে বিকেলে রূপগঞ্জ প্রজন্ম চত্বরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।