যে ছয় তথ্য আপনার অজানা ব্যালন ডি’অরের

119

নড়াইল কণ্ঠ : কে জিতবে ফুটবলারদের ব্যক্তিগত শ্রেষ্ঠত্বের ট্রফি ব্যালন ডি’অর? দীর্ঘ এক বছরের অপেক্ষার অবসান হবে আজ। আগে থেকেই গুঞ্জন, পঞ্চমবারের মতো এই ট্রফি উঁচিয়ে ধরতে চলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। আর চমকপ্রদ কিছু থাকলে উঠে আসবে তারই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসির নাম। যদিওবা সেরা তিনের তালিকায় আছেন নেইমারও।

ব্যালন ডি’অর তার যাত্রা শুরু করেছিল ১৯৫৬ সালে। ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর সম্পাদক গ্যাব্রিয়েল হান্তের সৌজন্যে। বহু বছরের পুরোনো এই ট্রফির রয়েছে সুদীর্ঘ ইতিহাস। প্রিয়.কম’র পাঠকদের জন্য আজ তুলে ধরা হলো ব্যালন ডি’অরের ছয়টি চমকপ্রদ তথ্য। যেগুলো অজানা থাকতে পারে অনেকেরই।

প্রথম : ইউরোপের বাইরের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ব্যালন ডি’অর জেতেন জর্জ উইয়াহ। ১৯৯৫ সালে এই পুরস্কার জেতেন সাবেক এসি মিলানের লাইবেরিয়ান তারকা।

দ্বিতীয় : দেশ হিসেবে সর্বোচ্চ ব্যালন ডি’অর জিতেছে জার্মানি এবং হল্যান্ড। উভয় দেশের খেলোয়াড়রাই সর্বোচ্চ সাতবার করে এই পুরস্কার জয়ের স্বাদ পেয়েছেন।

তৃতীয় : একমাত্র গোলরক্ষক হিসেবে ব্যালন ডি’অর জয়ের স্বাদ পেয়েছেন লেভ ইয়াশিন। ১৯৬৩ সালে।

চতুর্থ : ইতিহাসের প্রথম ব্যালন ডি’অর জেতেন স্যার স্ট্যানলি ম্যাথুজ। ১৯৫৬ সালে ঘরোয়াভাবে ভোটাভোটির মাধ্যমে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হয় তার হাতে।

পঞ্চম : সর্বশেষ ২০১০ সালে একই ক্লাব থেকে তিনজনকে চূড়ান্তভাবে মনোনীত করা হয় সেরা তিনের তালিকায়। তারা হলেন বার্সেলোনার লিওনেল মেসি, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা এবং জাভি হার্নান্দেজ।

ষষ্ঠ : ক্লাব হিসেবে সর্বোচ্চ এই পুরস্কার জিতেছে বার্সেলোনা। সর্বোচ্চ ছয়বার সম্মানজনক এই পুরস্কার নিজেদের শোকেসে তুলেছেন কাতালান ক্লাবটির খেলোয়াড়রা।