জাপার হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে নড়াইল-১ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী মিল্টন

1637

নড়াইল কণ্ঠ : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-১ আসনে (কালিয়া উপজেলা ও নড়াইল সদরের একাংশ) বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা সরবে প্রচারে নেমেছেন। আওয়ামীলীগ বিএনপির একাধিক প্রার্থী তাদের ছবি সম্বলিত নানা ধরনের শুভেচ্ছা দিয়ে পোষ্টার আর বিলবোর্ড দিয়েছেন সংসদীয় এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে। নানা সামাজিক অনুষ্ঠানে তাদের সরব উপস্থিতি প্রার্থীতা ঘোষনা জানান দিচ্ছে।নেতাদের নামে ফেসবুক পেজ ও খোলা হয়েছে সমর্থক গোষ্ঠী নাম দিয়ে। এর মধ্যে দিয়ে কিছুটা সরবে কিছুটা নিরবে কাজ করে চলেছেন জাতীয় পার্টি (এরশাদ) তরুন নেতা মিল্টন মোল্যা ।
কালিয়া উপজেলার খাসিয়াল গ্রামে মুক্তিযোদ্ধা মোঃ উকিল উদ্দিনের ছেলে মিলটন মোল্যা। ৩৫ বছর বয়সী এই যুবক গত সাত বছর ধরে জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। বর্তমানে জাপা জেলা সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির সদস্য সচিব মিল্টন। এর আগে জাতীয় যুবসংহতির কেন্দ্রীয় যুগ্ম প্রচার সম্পাদক ছিলেন। পরবর্তীতে জেলা জাপা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। যুবক এই নেতা বর্তমানে পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মোহাম্মাদ এরশাদ কর্তৃক নড়াইল-১ আসনের সমন্বয়কারীর দায়িত্ব প্রদান করেছেন। একদিকে দলীয় কর্মকান্ড, নানা সাংগাঠনিক কমিটি গঠন অন্যদিকে ভোটের জন্য গণসংযোগ, এভাবেই দলীয়নেতাকর্মীদের নিয়ে কাজ করে চলেছেন মিল্টন মোল্যা।
খাশিয়াল, টোনা, পুটিমারী, রামপুরা এলাকায় খোজ নিয়ে জানা গেছে, পারিবারিক ঐতিহ্যের কারনে কালিয়া এলাকার জনগণের সাথে তার অত্যন্ত সুসম্পর্ক রয়েছে। কয়েক বছরে নানা ধরনের সামাজিক কর্মকান্ড করেছেন তিনি। তার উল্লেখযোগ্য কর্মকান্ডের মধ্যে এলাকার স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গরীব ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা উপকরণ, খাবার, নগদ অর্থ প্রদান লেখাপড়ায় উৎসাহ দেয়ার মতো কাজ সাধারণ মানুষের মধ্যে তার গ্রহণযোগ্যতা বাড়িয়ে দিয়েছে।
এলাকার প্রবীণ আশরাফ আলী, লিয়াকত শেখ, তোরাপ মোল্যা জানান, মিল্টন অত্যন্ত সদালাপী এবং পরোপকারী। রাজনৈতিক কর্মকান্ডের বাইরেও সামাজিক প্রত্যেক কর্মকান্ডে মিল্টন মোল্যাকে পাওয়া যায়, এটা তাদের পারিবারিক ঐতিহ্য।
জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও খুলনা বিভাগের সাংগঠনিক দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা সুনীল শুভ রায় নড়াইল-০১ আসনের নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, আমাদের তরুন এবং প্রতিভাবান কিছু নেতা নিয়ে জাতীয পার্টি বেশ আশাবাদি। তার মধ্যে কালিয়ার মিল্টন মোল্যা অন্যতম। আমরা আশাকরি তারই হাত ধরে জাতীয় পার্টি নড়াইল-০১ আসন তথা নড়াইল জেলায় একটি ভালো অবস্থান তৈরী করবে।
নির্বাচন প্রসঙ্গে মিলটন মোল্যা জানান, নড়াইল ১ আসনে জাতীয় পার্টির বড় ভোট ব্যাংক রয়েছে। অতীতের কয়েকটি নির্বাচনে জাতীয় পার্টির বিপুল পরিমান ভোট পেয়েছে তাই প্রমান করে। আমি ও আমার দল নড়াইল-১ আসনে এলাকায় পলীøবন্ধু হুসাইন মোহাম্মাদ এরশাদের উন্নয়নের রাজনীতি করছি। এলাকার জনগণ আমাকে সমর্থন করলে আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টির হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে চাই। উল্লেখ্য ৯১ও ৯৬ এর নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রয়াত সভাপতি মেজর অবঃ গাজী আশরাফউল আলম ব্যাপক প্রতিদ্বন্দিতা করেছিলেন। তার অনুপস্থিতিতে নেতৃত্ব শূন্য হয়ে পড়লে বর্তমান প্রজন্মের তরুনরা মিল্টন মোল্যাকে নিয়ে আশাবাদী।