রংপুরসহ সারা দেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের প্রতিবাদে নড়াইলে মানববন্ধন

348

নড়াইল কণ্ঠ : অতিসম্প্রতি রংপুরে ফেসবুকের স্ট্যাটাস দেখেই কয়া নেই বুলা নেই অমনি যেয়েই হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি ভাংচুর, লুটপাট, হত্যা, ওদিকে পুলিশ থাকছে নিরবে, এদেশে ঘটে যাওয়া কোন ঘটনারই অদ্যবদি আইনী প্রতিকার দেখছি না। তার মানে কি আমরা এদেশের নাগরিক না? “ধর্ম যার যার রাস্ট্র সবার”। কোথায় তার আলামত। আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাই ধর্ম যদি যার যার হয় এবং রাস্ট্র যদি সবার হয় তাহলে আমাদের অবস্থান কোথায়? তাহলে কি আমরা পড়ে পড়ে এভাবে মার খেয়েই যাবো?
শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১১টায় নড়াইল চৌরাস্তায় রংপুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে ভাংচুর, লুটপাট, হত্যা ও অগ্নিসংযোগসহ সারা দেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের প্রতিবাদ ও ন্যায় বিচারের দাবীতে নড়াইলে ডাকা মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তারা এসব কথা বলেছেন।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ ও বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের জেলা শাখার আয়োজনে মানববন্ধনে সভপতিত্ব করেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি অশোক কুন্ডু।
এ সময় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো: সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, সাবেক নড়াইল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শরীফ হুমায়ূন কবীর, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের জেলা শাখার সভাপতি মলয় কান্তি নন্দী, জেলা পরিষদের সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান হিলু, অ্যাডভোকেট সঞ্জিত কুমার বসু, বিজয় সরকার ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সদস্য সচিব ও বিশিষ্ট ব্যবসাসী আকরাম শাহীদ চুন্নু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিব জোট জেলার সভাপতি মলয় কুমার কুন্ডু, জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমল আঁখি বিশ্বাস, উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আশিষ বিশ্বাস, অমিত রাজা সাহা, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাবুল কুমার সাহা, মিঠুল কুন্ডু, গৌর গাইন প্রমূখ।
মানববন্ধনে বক্তরা আরো বলেন, বাংলাদেশের এ ধরনের ঘটনা ঘটলে দেখি শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের গুটিকয়েক সংগঠন রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করে। এ ধরনের ঘটনার জন্য প্রতিবাদ করার জন্য শুধু কি হিন্দু সম্প্রাদায়ের গুটিকয়েক সংগঠনের দায় পড়ে!!, এদেশে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল রয়েছে তাদের তো তেমন কোন ভূমিকা আমরা লক্ষ্য করি না। হিন্দুদের জমিজমা বিভিন্ন কলাকৌশলে কুক্ষিগত করা হচ্ছে, তাদের হয়রানি করা হচ্ছে।
বক্তরা রংপুরসহ সারা দেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর যে অমানবিক নির্যাতন করা হচ্ছে তার সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচারের দাবি করেন। এসময় বিভিন্ন শ্রেনীপেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

Click this Video and share :