নড়াইল-২ আসনের এমপি’র বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

2784

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ সরদারের ছেলে এনামুল সরদারকে (৩২) মারধরের অভিযোগে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে লোহাগড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আহত এনামুল সরদারের চাচা মুক্তিযোদ্ধা আসাদ সরদার।
লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, ছাত্রলীগের এক কর্মী সুমন আহম্মেদ নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমানকে কটুক্তি করার পরিপ্রেক্ষিতে এমপি’র উপস্থিতিতে তাঁর সাথে থাকা জামাত বিএনপি’র নেতা জামির হোসেন ও তুহিন ছাত্রলীগের এক কর্মী সুমনকে বেধড়ক মারপিট করে। গত ৩০ অক্টোবর সকালে লোহাগড়ায় কৃষকদের মাঝে প্রণোদনা সার দেওয়াকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার বিষয়টি এনামুল সরদার ছাত্রলীগের কর্মীকে মারা উচিত হয় নাই মন্তব্য করায় ঔদিন বিকাল ৪টায় এমপি শেখ হাফিজুর রহমান ১০/১২জন চিহ্নিত বিএনপি-জামাত নেতাকর্মী দের সাথে নিয়ে লক্ষ্মীপাশা চৌরাস্তার বটতলায় এনামুল সরদারকে অনেক খোজাখুজির এক পর্যায় বিএনপির নেতা তুহিন এনামুল সরদারকে দেখিয়ে দেয় এমপিকে। এরপর এমপি এনামুলের পরিচয় জিজ্ঞেসা করেন। ঔসময় এমপি তাকে (এনামুল) কিল ঘুষি ও গালিগালাজ করেন। এ সময় যুবলীগ নেতা শেখ মাসুদুজ্জামান মারধর ঠেকানোর চেষ্টা করেন।
এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার গোলাম কবির, লোহাগড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফকির মফিজুল হক, মুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ সরদার, দিঘলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সরদার ওহিদুর রহমান, কুমড়ির সরদার আব্দুল হাই, যুবলীগ নেতা শেখ মাসুদুজ্জামান প্রমুখ।
নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, আমি মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের লোক হলে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মহাজোটের মনোনয়ন দিতেন না। এসব আগামি সংসদ নির্বাচনে ষড়যন্ত্রের অংশ।