নড়াইলের চাঁচুড়ী সোনালী ব্যাংকের গ্রাহককে শারীরিকভাবে লাঞ্চনার অভিযোগ

572

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের কালিয়া উপজেলার চাঁচুড়ী বাজার সোনালী ব্যাংকের গ্রাহককে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে সোনালী ব্যাংক চাঁচুড়ী বাজার শাখায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ দিকে এ ঘটনায় ব্যাংকের গ্রাহকদের মধ্যে চরম অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী গ্রাহক জানান, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে এগারটার দিকে উপজেলার চন্দ্রপুর গ্রামের ছলেমান শেখের ছেলে শাফায়েত শেখ (শারাফত) নামের এক সৌদি প্রবাসী তার মায়ের নামের ২ লাখ টাকার একটি চেক নিয়ে টাকা উত্তোলনের জন্য চাঁচুড়ী বাজার সোনালী ব্যাংকের শাখার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা (ক্যাশ) রথীন্দ্র নাথ বিশ্বাসের নিকট যান। চেকটিতে হিসাবধারীর স্বাক্ষরের গড়মিলের কথা বলে ব্যাংক কর্মকর্তা শারাফতকে টাকা প্রদানে অপারগতা প্রকাশ করেন।
এ সময় গ্রাহক বাড়িতে অবস্থান করা বৃদ্ধা মায়ের সঙ্গে মুঠোফোনে ব্যাংক কর্মকর্তা রথীন্দ্র নাথ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলাতে ক্যাশ কাউন্টারের সন্নিকটে যেতে চাইলে কথাকাটা কাটির এক পর্যায় নিরাপত্তাকর্মীকে দিয়ে তাকে ব্যাংক থেকে বের করে দেয়া হয়। এরপর ব্যাংকের বাইরে এসে ক্ষুদ্ধ গ্রাহক প্রতিবাদ করলে নিরাপত্তাকর্মী হাসান তারেক গ্রাহকের সাথে ধাক্কাধাকি হয়। এ দিকে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ব্যাংকে উপস্থিত গ্রাহকসহ স্থানীয়দের মধ্যে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ সময় পরিস্থিতি বে-গতিক বুঝতে পেরে শাখার ব্যবস্থাপক মেহবুব মুন্না স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করেন।এদিকে চাঁচুড়ী বাজার এলাকার মহিদুল হক খানের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ব্যাংকের গ্রাহকদের সাথে বেশিরভাগ কর্মকর্তা ভাল ব্যবহার করেন না। প্রতিনিয়ত গ্রাহকরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হতে হয়।
এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংক চাঁচুড়ী বাজার শাখার ব্যবস্থাপক (ম্যানেজার) মেহবুব মুন্না বলেন,‘গ্রাহক ব্যাংকের নিরাপত্তাজনিত সংরক্ষিত স্থানে ঢুকে পড়া নিয়ে নিরাপত্তাকর্মীর সঙ্গে সে দুর্ব্যবহার করায় আমরা পুলিশে খবর দিয়েছিলাম।পরবর্তীতে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে বিষয়টি আপোষ-মিমাংসা করা হয়েছে।’
এ ব্যাপারে চাঁচুড়ী বাজার সোনালী ব্যাংকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা (ক্যাশ) রথীন্দ্র নাথ বিশ্বাস বলেন,‘গ্রাহককে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার অভিযোগ সঠিক নয়। গ্রাহকই নিরাপত্তকর্মীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন।’ এ প্রসঙ্গে কালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শমসের আলী বলেন,‘ চাঁচুড়ী বাজার সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথমে থানা থেকে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। আমরা স্থানীয়দের থেকে জেনেছি চাঁচুড়ি বাজারের এক দোকানে নিরাপত্তাকর্মীর সাথে এক গ্রাহকের সাথে ধাক্কাধাকি হয়। পরে শুনেছি বিষয়টি আপোষ-মিমাংসা করে নিয়েছেন। পরবর্তীতে ব্যাংকের ম্যানেজার আমাদের আইনানুগ ব্যবস্থা না নিতে অনুরোধ করেন।