নড়াইল জেলা পাবলিক লাইব্রেরীর ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন

1105

নড়াইল কণ্ঠ : উৎসবমুখর পরিবেশে ঐতিহ্যবাহী নড়াইল জেলা পাবলিক লাইব্রেরীর ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনে সহ-সভাপতি সৈয়দ আরিফুল ইসলাম পান্ত, সাধারণ সম্পাদক পদে কাজী বশিরুল হক বশির ও যুগ্ম সম্পাদক পদে এস এম পলাশ নির্বাচিত হয়েছেন।
শনিবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।
নির্বাচনে উজ্জ্বল-বশির-পলাশ পরিষদের একটি পূর্ণাঙ্গ প্যানেলে ১০জন প্রার্থী এবং অন্যান্য পদে আরো ৯ জন সর্বমোট ১৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। পদাধিকার বলে নড়াইল জেলা প্রশাসক কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।
প্রাপ্ত ফলাফলে জানাগেছে, সহ-সভাপতি পদে সৈয়দ আরিফুল ইসলাম পান্ত ৩৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ তারিকুল ইসলাম উজ্জ্বল পেয়েছেন ৩৪৩ ভোট।
সাধারণ সম্পাদক পদে কাজী বশিরুল হক ৩৮৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বিত হেফজুর রহমান খুশবু পেয়েছেন ৩৬৪ ভোট।
যুগ্ম সম্পাদক পদে এস এম পলাশ ৩৬৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি রেজাউল করিম এরশাদ পেয়েছেন ২০৫ ভোট এবং গাজী রাজীব মোহাম্মদ রাজু পেয়েছেন ১৫৫ ভোট।
এছাড়া সদস্য পদে যথাক্রমে রাকিব হাসান খান রাসেল (৪৮১ ভোট), মোঃ ফিরোজ খান (৪৫৯ ভোট), মোঃ ফিরোজ শেখ (৪৩৮ ভোট), মোঃ কামরুল হাসান (৪৩২ ভোট), হোসেন আলী জনি (৩৯৭ ভোট), মোঃ মিশকাতুর রহমান (৩৮৬ ভোট) ও সৈয়দ হুমায়ুন কবীর (৩৮০ ভোট) নির্বাচিত হয়েছেন।
নির্বাচনে ৯৩৩ জন ভোটারের মধ্যে ৭৬৪ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। ভোট গণনা শেষে রিটার্নিং অফিসার নড়াইলের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইয়ারুল ইসলাম ফলাফল ঘোষণা করেন। ফলাফল ঘোষণার পর বিজয়ী প্রার্থী ও তার কর্মী-সমর্থকরা আনন্দ-উচ্ছাসে মেতে ওঠেন।
১৯৫৭ সালে প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী এই লাইব্রেরীর উন্নয়নে কাজ করতে চান নবনির্বাচিতস কমিটির সদস্যরা। নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক কাজী বশিরুল হক তার অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, ৬০ বছর ধরে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে আসছে ঐতিহ্যবাহী নড়াইল পাবলিক লাইব্রেরী। লাইব্রেরীর উন্নয়ন, পাঠক সংখ্যা বৃদ্ধি, নতুন নতুন বই সংগ্রহ, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্বলিত বই সংগ্রহ সহ নানা ধরণের বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। লাইব্রেরীর সদস্যসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের মতামতের ভিত্তিতেই লাইব্রেরীর উন্নয়নে সকলকে নিয়েই এগিয়ে যাবে পাবলিক লাইব্রেরী। নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যবৃন্দ আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন ।
এদিকে নির্বাচনকে ঘিরে পাবলিক লাইব্রেরী এলাকা জুড়ে উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত ভোটারদের যেন আলাদা কদর ছিল। প্রার্থীরা ও তাদের সমর্থকদের ভালবাসায় যেন ভোটাররা ছিল মুগ্ধ। শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল।