জাপানসহ বিভিন্ন দেশে নারী কর্মী পাঠানোর উদ্যোগ সরকারের

116

নড়াইল কণ্ঠ : জাপান, রাশিয়া, মরিশাস, মালদ্বীপ, হংকংসহ কয়েকটি দেশে আরো নারী কর্মী পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এসব দেশসহ বাংলাদেশ থেকে নারী গৃহকর্মী এবং দক্ষ ও আদা দক্ষ কর্মী নেয়ার ব্যাপারে ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেছে আরো কয়েকটি উন্নত দেশ।
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব নমিতা হালদার জানান, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ নারী কর্মী নেয়ার জন্য ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ইতোমধ্যে জাপানের সাথে এ ব্যাপারে আলোচনা করার জন্য প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দল জাপান সফর করেছেন। নারী কর্মী প্রেরণ সংক্রান্ত বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল রাশিয়ায় সফর করছেন।
বাংলাদেশ থেকে চলতি বছর ৮ লাখ কর্মী বিদেশ প্রেরণ করার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এরমধ্যে আগস্ট মাস পর্যন্ত ৬ লাখ ৯০ হাজার ৪৬জন কর্মী বিদেশ গেছেন। এরমধ্যে সউদী আরবে গেছেন ৩ লাখ ৯২ হাজার ৬০২ জন কর্মী।
চলতি বছর মোট ৮২ হাজার ৫১০জন নারী কর্মী বিদেশে গেছেন। এরমধ্যে সউদী আরবে গেছেন ৫৫ হাজার ২৯৮ জন নারী গৃহকর্মী। এছাড়া জর্ডানে ১৩ হাজার ৯৬৩ জন, ওমানে ৬ হাজার ৭০৩জন নারী কর্মী গিয়েছেন।
মন্ত্রণালয় সূত্রে আরো জানা যায়, গত বছর ১ লাখ ১৮ হাজার ১৮ জন নারী কর্মী কাজ করতে বিদেশ গিয়েছে। ২০১৬ সালে অভিবাসী শ্রমিকরা ১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি আয় করেছে।
সচিব নমিতা হালদার বলেন, পোশাক কারখানায় দক্ষ নারী কর্মী এবং মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে গৃহকর্মী প্রেরণের আগে ৩৪টি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মাধ্যমে বিশেষ ভাষা জ্ঞানসহ বিভিন্ন বিষয়ে বিভিন্ন মেয়াদে বিদেশগামী কর্মীদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।
তিনি বলেন, বিদেশ থেকে ফেরত আসা প্রবাসী কর্মীদের কল্যাণে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিশেষ পুনর্বাসন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়ে থাকে।
মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণে রিহায়ারিং ও কর্মী প্রেরণ নিয়ে বাংলাদেশ কূটনৈতিক তৎপরতা আরো জোরদার করেছে। আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত অন্যদিকে, মালয়েশিয়ায় রিহায়ারিং করার মাধ্যমে বাংলাদেশী অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণ করা যাবে।
সরকার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে এবং বৈদেশিক কর্মসংস্থানের বর্তমান ধারা অব্যাহত রেখে ২০১৭ সালে ৮ লাখের বেশি কর্মী বিদেশে প্রেরণ করবে। বর্তমানে মালয়েশিয়ায় আট লাখ বাংলাদেশের শ্রমিক বৈধভাবে কাজ করছে। মালয়েশিয়া সরকার সম্প্রতি বাংলাদেশের ২ লাখ ৬০ হাজার অবৈধ শ্রমিককে রিহায়ারিং কোটায় বৈধতা দিয়েছে বলে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।
এদিকে দেশের বিমান বন্দরসমূহে অবৈধভাবে কর্মী গমন রোধে মনিটরিং ও এনফোর্সমেন্ট টাস্কফোর্সের কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে।