দুদকের মামলায় নড়াইলের ৮জনকে ৭ বছরের কারাদন্ড, ৬জন কারাগারে

1550

নড়াইল কণ্ঠ : হাট বাজার ইজারা নীতিমালার শর্ত ভঙ্গের দায়ে দুদকের মামলায় বর্তমান নড়াইল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, নড়াইল পৌর মেয়রসহ ৮জনের প্রত্যেকে ৭ বছরের করে সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৬৫টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদন্ডের রায় দেওয়া হয়েছে। কারাদন্ডপ্রাপ্ত ৮জনের মধ্যে এ মামলা ৬জনকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত। একজন কয়েক বছর পূর্বে মৃত্যুবরন করেছেন।
মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে যশোর স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা এ আদেশ দেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, বর্তমান নড়াইল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: সোহরাব হোসেন বিশ্বাস (সাবেক পৌর চেয়ারম্যান), নড়াইল পৌরসভার বর্তমান মেয়র মো: জাহাঙ্গী বিশ্বাস (সাবেক কাউন্সিলর), বর্তমান কাউন্সিলর শরফুল আলম লিটু, সাবেক পৌর কাউন্সিলর সৈয়দ মুশফিকু রহমান বাচ্চুু, মো: আহম্মেদ আলী খান, মো: রফিকুল ইসলাম, মো: তেলায়েত হোসেন, সাবেক অফিস সহকারী মরহুম মতিউর রহমান।
দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) যশোরের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) সিরাজুল ইসলাম বলেন, নড়াইল পৌরসভার রূপগঞ্জ পশুহাট ১৪১২, ১৪১৩, ১৪১৪ বাংলা সনের ইজারা মূল্য ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৬৫ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় ২০০৯ সালের ৭ আগস্ট নড়াইল থানায় মামলা হয়। বিজ্ঞ স্পেশাল জজ আদালত দন্ডবিধি ৪০৯, ১০৯ এবং ১৯৪৭ সালের ২নং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় এ শাস্তি দেয়। দন্ডবিধি ৪০৯ ধারায় প্রত্যেকে ৩বছর এবং ৫(২) ধারায় ৪ বছর করে শাস্তি প্রদান করে এবং প্রত্যেকে ১ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকার জরিমান করে। বিজ্ঞ স্পেশাল জজ আদালত যশোরের স্পেশাল মামলা নং- ১৪/২০০৯।
উল্লেখ্য, বিগত ২০০৯ সালে হাট বাজার ইজারা নীতিমালার শর্ত ভঙ্গ করে বাংলা ১৪১১, ১৪১২ ও ১৪১৩ সনের নড়াইল পৌরসভার পশুরহাটের ইজারা বাতিল করে ১ লক্ষ ৯৫ হাজার ৩৫৫ টাকা খাস আদায় করে অবৈধভাবে ৩৩ হাজার টাকা ফেরৎ দেয়ায় সরকারের আর্থিক ক্ষতি হওয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিত যশোর এর সহকারী পরিচালক মো: ওয়াজেদ আলী গাজী বাদি হয়ে নড়াইল পৌরসভার ৭জন জনপ্রতিনিধি ও ১জন কর্মচারীর বিরুদ্ধে মোট ৮জনের নামে নড়াইল থানায় মামলা করেন। মামলা নং-৯। তারিখ :৭/৮/২০০৯।