নেইমার বলছেন কাভানিকে বেচে দিতে!

116

নড়াইল কণ্ঠ : ট্রান্সফার ফির বিশ্বরেকর্ড গড়ে নেইমারকে কেনার সময় পিএসজি সভাপতি নাসের আল-খেলাইফি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডই হবেন দলের ‘সেরা তারকা’। মানে, বার্সেলোনায় যেমন লিওনেল মেসি, পিএসজিতে তেমন নেইমার—ক্লাবের সব কাজের কাজি। সর্বশেষ ঘটনার পর নেইমার নাকি এখন এই বার্তাই পাঠিয়েছেন ক্লাবের নীতিনির্ধারকদের, এডিনসন কাভানিকে বেচে দাও!

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘স্পোর্ত’ জানিয়েছে, ‘খেলাইফিকে নেইমার বলেছেন, কাভানির সঙ্গে আর থাকতে পারছেন না। এ কারণে উরুগুয়ে স্ট্রাইকারটিকে বেচে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি।’ এখন খেলাইফি তাঁর দলের ‘সেরা তারকা’র দাবি মেনে নেন কি না, তা টের পাওয়া যাবে সামনের মধ্যবর্তী দলবদলের বাজার কিংবা চলতি মৌসুম শেষে। ‘স্পোর্ত’ লিখেছে, কাভানি-নেইমার মনোমালিন্যে খেলাইফি হয়তো শেষ পর্যন্ত ব্রাজিলিয়ানের পাশেই দাঁড়াবেন।
ঘটনার সূত্রপাত পিএসজির সর্বশেষ ম্যাচে। লিওঁর বিপক্ষে সেই ম্যাচে পেনাল্টি আর ফ্রি-কিক নেওয়া নিয়ে অপ্রীতিকর দৃশ্যের জন্ম দেন নেইমার ও কাভানি। প্রথমে কাভানিকে ফ্রি-কিক নিতে দেননি নেইমার ও দানি আলভেজ। সেই ফ্রি-কিকটা নিয়েছেন নেইমার। পরে তাঁকে পেনাল্টি নিতে দেননি কাভানি। ফরাসি সংবাদমাধ্যম ‘লেকিপ’ জানিয়েছে, পিএসজির ড্রেসিংরুমেও এ নিয়ে তর্কাতর্কি বেঁধেছিল দুই তারকার। থিয়াগো সিলভার মধ্যস্থতায় দুজনের কথা-কাটাকাটি আর হাতাহাতি পর্যন্ত গড়ায়নি।
তবে কাভানি কিন্তু নেইমারের সঙ্গে বাদানুবাদ অস্বীকার করে গেছেন। উরুগুয়ে তারকার ভাষ্য, ‘এসব বানানো কথা। কেন এসব বানানো হয় তা জানি না। এসব খুবই সাধারণ ব্যাপার, ফুটবলে এমন ঘটতেই পারে। সবাই বলছে, কাভানি কাউকে পেনাল্টি নিতে দেয়নি এবং সমস্যাটা নেইমারের সঙ্গে। কিন্তু সত্য হলো, কোনো সমস্যা নেই।’
স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, পিএসজি স্কোয়াডে কাভানিকে আপাতত ‘একঘরে’ করে দেওয়ার রাস্তায় হাঁটছেন নেইমার। এ জন্য ক্লাবটিতে ব্রাজিলিয়ান সতীর্থদের সমর্থন পাচ্ছেন সাবেক বার্সা ফরোয়ার্ড। এ ছাড়া কিলিয়ান এমবাপ্পের সমর্থনও রয়েছে নেইমারের প্রতি। কাভানি-নেইমার দ্বন্দ্বে এখন খেলাইফি কী করেন, সেটাই দেখার বিষয়। সূত্র: স্পোর্ত।