কুষ্টিয়ায় ধুমপান আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট

140

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন পরোক্ষ ধূমপানের ক্ষতি হতে রক্ষা করতে জনস্বার্থে কুষ্টিয়ায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মহি উদ্দিন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছে। মোবাইল কোর্টে ৩জনের নিটক থেকে ১২ হাজার টাকা জরিমান আদায় করা হয়।

রবিবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে কুষ্টিয়ায় ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে। ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন ২০০৫ সংশোধন আইন ২০১৩ এর আওতায় তামাকজাত দ্রব্য উৎপাদনকারী প্রত্যেক প্রতিষ্ঠান তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেটে বা মোড়কে বড় অক্ষরে স্পষ্টত দৃশ্যমানভাবে ও বড়মাপে (মোট জায়গার অন্যূন ৩০% শতাংশ পরিমাণ) সর্তকবাণী মুদ্রণ না করায় গণি গুলের বদরুজ্জামান ক্যামিক্যাল কোম্পানিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয় এবং আইনমানার জন্য লিখিতভাবে ৬টি বিষয় সংশোধন ও পালনের জন্য বিজ্ঞম্যাজিষ্টেট নির্দেশ প্রদান করেন। বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের জন্য মজমপুর রেলগেট এলাকা থেকে বেলাল ষ্টোর ও মামুন ষ্টোরের ২ জনের নিকট হতে ২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। উল্লেখ্য তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন, প্রচারণা এবং পৃষ্ঠপোষকতা নিষিদ্ধ আইন অমান্যে জরিমানা ১ লক্ষ টাকা। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মহি উদ্দিন, কুষ্টিয়া মডেল থানার এসআই মো: রোকনুজ্জামান খানের সঙ্গীয় ফোর্সের সহযোগিতায় মোবাইল কোর্টটি পরিচালিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার পারভেজ আকতার হোসেন, জুনিয়র অফিসার শামসুল আলাম, বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট‘র প্রতিনিধি ও জেলা তামাক নিয়ন্ত্রণ টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য সাফ‘র নির্বাহী পরিচালক মীর আব্দুর রাজ্জাক ও তাবিনাজের সদস্য এবং নিকুশিমাজের নির্বাহী পরিচালক সালমা সুলতানা। এসময় সাফ‘র পক্ষ থেকে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংক্রান্ত লিফলেট বিলি করা হয় এবং মৌখিক ভাবে সাধারণ ষ্টেকহোল্ডারদের আইন সর্ম্পকে বলা হয়। সাধারণ মানুষ মোবাইল কোর্টকে স্বাগত জানান এবং নিয়মিত মোবাইল কোর্ট করার জন্য আহবান জানান।