বৃষ্টিতে দুর্ভোগে ঢাকাবাসী

162

নড়াইল কণ্ঠ : রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন এলাকার রাস্তা প্রায় অচল হয়ে পড়ছে। রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি থেকে শুরু করে নতুন নির্মাণ, উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে সমন্বয়হীনতা এবং কয়েক দিনের টানা মৌসুমি বৃষ্টিতে অধিকাংশ রাস্তাঘাট চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ছে।
এদিকে দুই সিটি করপোরেশনেরই বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে চলছে নতুন রাস্তা তৈরিসহ ফুটপাত ভাঙা-গড়া, নর্দমা তৈরির কাজও। ফলে ব্যহত হচ্ছে স্বাভাবিক চলাচল। এ অবস্থায় বাড়ি থেকে বের হলেই বেহাল রাস্তা ও পরিবহন বিশৃঙ্খলার সম্মুখীন হয়ে ঘণ্টার পর ঘন্টা পথেই কাটাতে হচ্ছে নিরুপায় ঢাকাবাসীকে।
তবে এই দুর্ভোগ এক দিন, সপ্তাহ বা মাসের নয়। এই অবস্থা চলছে মাসের পর মাস। কিন্তু নগর কর্তৃপক্ষ অথবা সরকারের কোনো পর্যায় থেকেই এই দুর্ভোগ নিরসন কিংবা নিদেনপক্ষে কমিয়ে আনার মতো কোনো উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে নগরবাসী অসহায়, নিরুপায়। আর এ দুর্ভোগ থেকে শিগগিরই মুক্তির লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষও সাময়িক স্বস্তির কোনো পথ দেখাতে পারছে না।
নগর-গবেষক অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেন, ব্যবস্থাপনার দুর্বলতা এবং অর্থহীন ও উল্টাপাল্টা প্রকল্প গ্রহণের ফলে নগরীর এই অচলাবস্থা। পরিস্থিতি ইতোমধ্যে খুব খারাপ হয়ে গেছে। ঢাকায় নতুন সমস্যা হিসেবে যুক্ত হয়েছে জনস্বাস্থ্য। এখনকার মতো আর কিছুদিন চলতে থাকলে ঢাকা পুরোপুরি ‘ফেইলড সিটি’ হয়ে যাবে।
বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে উত্তরের মেয়র আনিসুল হক বলেন, ‘দখলদারদের উচ্ছেদ করে প্রকল্পের কাজ শুরু করতে বিলম্ব হয়েছে। এর মধ্যে এসেছে বৃষ্টি। সে কারণে নগরবাসীর দুর্ভোগ হচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব আমরা চলমান প্রকল্পের কাজ শেষ করে দুর্ভোগ নিরসনের চেষ্টা করছি।’
প্রসঙ্গত, ঢাকা উত্তর সিটিতে এ বছরই প্রায় ৬০০ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া সড়ক, নালা ও ফুটপাতের দৈনন্দিন মেরামতের জন্য বরাদ্দ আছে ১৮০ কোটি টাকা। তারপরও দেখা যাচ্ছে রাস্তাঘাটে মানুষের দুর্ভোগ তো কমছেই না, বরং বাড়ছে