নড়াইলে সংখ্যালঘু কিশোরী কন্যা অপহরণ

108

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের স্কুল পড়–য়া কিশোরী কন্যা অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত অভিযোগে জানা গেছে, নড়াইল সদর উপজেলার মহাজন গ্রামের ইউপি সদস্য টিক্কা ভূইয়ার বখাটে পুত্র জুবায়ের পার্শবর্তী বিষ্ণুপুর গ্রামের প্রশান্ত রায়ের কন্যা পপি রায়কে অপহরন করেছে। পপি রায় স্থানীয় ত্রিমোহনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী। স্কুলে যাওয়া আসার পথে প্রায়ই পপিকে উত্যক্ত করতো মাদকাসক্ত বখাটে জুবায়ের। এ বিষয়ে তার পিতা ইউপি সদস্য টিক্কার নিকট একাধিকবার অভিযোগ করেও কোন ফল হয়নি। বরং ক্ষুব্ধ হয়ে পরিকল্পিতভাবে গত বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে পপিকে অপহরন করে। পপির পরিবার ও এলাকাবাসি জানায়, এর আগেও প্রায় ২ মাস আগে জুবায়ের স্থানীয় সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় পপিকে অপহরণ করে। ঘটনাটি ব্যাপক জানাজানি হওয়ায় এবং স্থানীয় লোকজনের চাপে জুবায়ের পপিকে ফেরত দিতে বাধ্য হয়। পপির বাবা প্রশান্ত রায় বিদেশ থাকায় পপির মা মেয়ের নিরাপত্তার জন্য তাকে পার্শবর্তী চরমালিডাঙ্গা গ্রামে মামা বাড়িতে রাখে। সেখানে রেখেও রক্ষা পায়নি। চরমালিডাঙ্গা গ্রাম হতে পপিকে অপহরন করে জুবায়ের তাকে নিয়ে অজানা স্থানে আতœগোপনে রয়েছে। এদিকে কিশোরী কন্যাকে ফিরে পেতে তার মা সমাজপতিদের নিকট ধর্না দিয়েও কোন ফল পাচ্ছে না। জুবায়েরের পিতা ইউপি সদস্য ও প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ মুখ খুলছে না। এদিকে পপির পরিবার টিক্কা ভূইয়ার হুমকিতে থানা পুলিশের নিকট অভিযোগ করতে পারছেনা। এ বিষয়ে টিক্কা’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নাবালিকা কিশোরী পপিকে অপহরন করা হয়নি, প্রেমের সূত্রে পালিয়েছে। যেহেতু পপি নাবালিকা, তার বিয়ের বয়স হয়নি, তাছাড়া হিন্দু মেয়ে তাই তাদের খুজে পেলে তার মায়ের নিকট ফেরত দেয়া হবে। পপির পরিবার ও এলাকার সচেতন মহল এ ব্যাপারে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।