দুর্ভোগে সিরাজগঞ্জ বাসী

94

নড়াইলকণ্ঠ : উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর টানা বর্ষণে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। রবিবার সকালে সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ এলাকায় বিপদসীমার ২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ঐ এলাকার মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জ অংশে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে ১১ সেন্টিমিটার।
বিপদসীমার ২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ার কারণে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধির ফলে জেলার কাজিপুর, শাহজাদপুর, চৌহালী, বেলকুচি এবং সদর উপজেলার পাঁচটিসহ উপজেলার ২৮টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। বন্যা কবলিত মানুষ বাড়িঘর ছেড়ে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছেন।
এদিকে যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার খোকশাবাড়ি এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ২০০৭ সালে ভেঙে যাওয়ার পর আর সংস্কার করা হয়নি। ভাঙা অংশ দিয়ে পানি ঢুকে রানীগ্রাম ও গুনেরগাতী, খোকশাবাড়ী এলাকায় পানি ঢুকে পড়েছে। বন্যা কবলিত মানুষ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিচ্ছে।
সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান ইমাম জানান, বর্তমানে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আগামী ৪-৫ দিন পানি আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। শহর রক্ষা বাঁধগুলো যাতে ভেঙে না যায় এ জন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।