যশোরের ৩ সরকারি অফিসের সেবা নিয়ে দুদকের অসন্তোষ

145

নড়াইলকণ্ঠ : যশোরের তিনটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে আকস্মিক পরিদর্শন করে কর্মকর্তাদের উপস্থিতি, সেবা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) ড. মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন।
বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে যশোর জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বরের বিআরটিএ অফিস পরিদর্শনে যান তিনি। সেখানে গিয়ে তিনি বিআরটিএ-এর সহকারী পরিচালক মেজবাহ উদ্দিনকে তার দপ্তরে পাননি। তবে মোহাম্মদ নাসির উদ্দিনের আসার খবর পেয়ে মেজবাহ উদ্দিন কিছু সময়ের মধ্যে অফিসে আসেন।
এ সময় দুদক কমিশনার হাজিরা খাতার স্বাক্ষর, অনুপস্থিতি ও সিটিজেন চার্টার না থাকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এরপর তিনি পাশের ভূমি অফিসে যান। সেখানে গিয়েও ভূমি কর্মকর্তা, রেজিস্ট্রার ও সাব-রেজিস্ট্রারদের কক্ষে পাননি। এ প্রতিষ্ঠানের হাজিরা খাতার স্বাক্ষর, অনুপস্থিতি ও সিটিজেন চার্টার না থাকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।
এর আগে সকাল পৌনে ১০টার দিকে সার্কিট হাউজ থেকে বের হয়ে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল পরিদর্শনে যান দুদক কমিশনার। তিনি জরুরি বিভাগ, মডেল ওয়ার্ড ঘুরে যান হাসপাতাল তত্ত্বাবধায়কের কক্ষে। এ সময় কক্ষ থেকে সংবাদকর্মীদের বেরিয়ে যেতে অনুরোধ করেন তত্ত্বাবধায়ক। প্রায় ১৫ মিনিট বৈঠক শেষে কক্ষ থেকে বের হন দুদক কমিশনার। চলে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘হাসপাতালের অবকাঠামো সমস্যা রয়েছে। কর্তৃপক্ষ নিজে থেকে স্বীকার করেছে দালালের তৎপরতার কথা।’
এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন- দুদকের পরিচালক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, খুলনা বিভাগীয় পরিচালক ড. আবুল হাসান, দুদকের সমন্বিত কার্যালয় যশোরের উপ-পরিচালক মো. জাহিদ হোসেন, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান প্রমুখ।