নড়াইলে জুয়ার আস্তানা উচ্ছেদ, ৪জনের নামে মামলা

451

নড়াইলকণ্ঠ ॥ নড়াইল সদর উপজেলার চন্ডিবরপুর ইউনিনের ফেদী গ্রামের একটি বাগানে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা জুয়ার আস্তানায় অভিযান চালিয়ে আস্তানাটি ভেঙ্গে গুড়িয়ে উচ্ছেদ করে দিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। পর পর দু’দফা অভিযানকালে জুয়ার আসর থেকে ৪ জুয়াড়–কে আটক করেছে এবং তাদের নামে জুয়া আইনে মামলা দেয়া হয়েছে।
পুলিশ জানায়, সোমবার (১৯ জুন) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফেদী বাজারের দক্ষিণ পাশের একটি বাগানে অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ। অভিযানকালে বাগানের ভিতরে অস্থায়ীভাবে তৈরি করা জুয়াড়ীদের একটি টিনসেডের ঘর ভেঙ্গে দেয়া হয়। এই ঘরে দিনে এবং রাতে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা জুয়াড়ূরা জুয়া খেলতো।
গত রবিবার (১৮ জুন) রাতে সদর থানার এসআই মাসুদের নেতৃত্বে একই স্থানে অভিযান চালিয়ে চার জুয়াড়–কে জুয়া খেলার সরঞ্জাম ও নগদ টাকাসহ আটক করে। আকটকৃতরা হলো ফেদী গ্রামের হাবিার মেল্যা, খায়রুল হাসান, আলিম খান এবং লোহাগড়া উপজেলার রায়গ্রামের শামছু বিশ্বাস।
এলাকাবাসি অভিযোগ করেন, দীর্ঘদিন ধরে ফেদী বাজারের দক্ষিণ পাশের ওই বাগানে জুয়ার আসর চলে আসছিল। সদর উপজেলার মুলদাইড় ও সীমাখালী গ্রামের কয়েক জুয়াড়ূ স্থানীয় কয়েককজন জুয়াড়–ীর সহায়তায় জুয়ার আসর চালিয়ে আসছে। ভয়ে এলাকার নিরীহ মানুষ প্রতিবাদ করতে পারে না। ফেদীসহ আশপাশের এলাাকায় জুয়ার পাশাপাশি ফেনসিডিল, ইয়াবা ও গাঁজার বিস্তার ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় এলাকায় সামাজিক অবক্ষয় নেমে এসেছে। নাম প্রকাশে অনুচ্ছুক এমন কয়েকজন প্রতিনিধিকে জানান, এসব মদ, গাঁজা , ফেন্সিডিল, জুয়ার আসরসহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ এলাকার বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মদদে ঘটে আসছে। বিষয়টি বার বার পুলিশ প্রশাসনকে জানানোর পরও থেমে থাকেনি এ কাজগুলি। এ অভিযানে তারা সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, আমরা সামাজিকভাবে ঐক্যবদ্ধ হয়ে পুলিশের সহযোগিতা করতে চাই। কিন্তু পুলিশ যেন জুয়াড়িদের কাছে বেচা-কেনা না হয় দিকটা যেন এসপি সাহেব দেখেন।
নড়াইলের পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম জানান, জুয়া খেলার খবর শোনার পর দু’দফা অভিযান চালিয়ে ৪ জুয়াড়–কে আটক করে জুয়া আইনে মামলা দেয়া হয়েছে এবং জুয়ার আস্তানাটি ভেঙ্গেগুড়িয়ে উচ্ছেদ করে দেয়া হয়েছে। পুলিশ মাদক, জুয়াসহ কোন অনৈতিক কর্মকান্ডের নতি স্বীকার করবে না। মাদক ও জুয়া বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে। তিনি এলাকার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।
সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসনে খান জানান, আকটকৃত ৪জনের নামে জুয়া আইনে মামলা দিয়ে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।