ভারত পাকিস্তানের নিকট শোচনীয় পরাজয়ের কারণ কি?

164

নড়াইলকন্ঠ : চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ব্যাটিং ও বোলিং উভয় ক্ষেত্রেই ভারতকে ধরাশায়ী করে শিরোপা জিতে নিলো পাকিস্তান।
টুনার্মেন্টের আগে আইসিসি ওডিআই র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশেরও নীচে ছিল পাকিস্তান দল।
শেষপর্যন্ত গ্রুপ পর্বে ১২৪ রানে ভারতের কাছে হারা পাকিস্তান দলই ফাইনালে গিয়ে ১৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে জিতে গেল।
চীর-প্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকে হারিয়ে তারা প্রথমবারের মত জয় করলো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা।
ভারতের এই শোচনীয় পরাজয়ের পেছনে কী কারণ?
ভারতীয় ক্রিকেট দলের মূলশক্তি ব্যাটিং। ফাইনালে বিরাট কোহলি টস জিতে ফিল্ডিং নেয়ার কারণ তারা ভেবেছিল পাকিস্তান যাই রান করুক না কেন সেটা তাড়া করে তারা জিতে যাবেন। কিন্তু হেরে গেল ভারত।
বিবিসির সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক মিহির বোস বলেন, বিরাট কোহলি যখন যখন চেজ করতে হয় তখন খুব ভালো খেলে। কিন্তু একটা বলে এই ম্যাচটা ঘুররে গেল বলে মনে করেন মিহির বোস। আর সেটা হল পাকিস্তানের ব্যাটিং এর সময় দলের স্কোর যখন মাত্র ৮ রান তখন ফখর জামানের ক্যাচ ফেলে দেয়া। এরপর তার সেঞ্চুরির সুবাদে পাকিস্তান দল তিনশোর ওপর রান তোলে।
“একটা উইকেট ম্যাচ ঘোরায় না। কিন্তু ওইসময় বোলার নো বল করেছিল। ভারতের বোলিং এ অনেক ওয়াইড ছিল। পাকিস্তান তাড়াতাড়ি উইকেট হারালে কি হতো সেটা বলা মুশকিল। তবে এরপর ফখর জামান দারুণ সেঞ্চুরি করেছে।তিনশো রানের ওপর ফাইনালে চেজ করাটা সহজ কথা না”
ভারতের মূল শক্তি ব্যাটিং আর সেটাকে তারা ব্যবহার করতে পারেনি। অন্যদিকে পাকিস্তানের শক্তি বোলিং। সেটাকে তারা দারুণভাবে ব্যবহার করেছে।
মিহির বোস বলছিলেন, “পাকিস্তানের ক্রিকেট ইতিহাস দেখলে যখন থেকে তারা টেস্ট খেলা শুরু করেছে তারা ভালো ভালো বোলার বের করেছে। তাদের বোলাররা ব্যাটসম্যানকে খুব চাপে রাখে। এবারও সব বোলার ভালো করেছে। কোনও মিস ফিল্ডিংই হয়নি।দারুণ ক্যাচ ধরেছে। ভালো স্কোর করছে। বোলাররা ভালো করেছে। ব্যাটসম্যানদের ওপর এর একটা চাপ পড়ে তো। কারণ রান করতে পারছে না”।
মি বোস বলেন, “একদিকে স্কোর-বোর্ড প্রেশার তার ওপরে ফিল্ডিং প্রেশার-এই দুটো চাপে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা হেরে গেছে”।
যেভাবে টুর্নামেন্ট শুরু করেছিল সে অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে শিরোপা শেষপর্যন্ত তাদের হাতেই উঠলো। পাকিস্তানের বর্তমান দলটি কতটা আশা জাগাচ্ছে?
এর জবাবে মি বোস বলেন, ” ১৯৯২ সাথে ইমরান খানের নেতৃত্বে পাকিস্তান যখন অস্ট্রেলিয়া গেল খুব খারাপ খেলছিল। একটু সৌভাগ্যও ছিল। কয়েকটা ম্যাচ হারার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা ওয়ার্ল্ড কাপ জিতে গেল। সেটা পাকিস্তানের ক্রিকেটে অনেক উন্নতি করলো। এটাও করতে পারে”।
বিবিসির সাবেক এই স্পোর্টস এডিটর বলেন, পাকিস্তানের সমস্যা হল বিশাল। তারা নিজের দেশের মাটিতে খেলতে পারছেনা। তারা খেলছে মধ্যপ্রাচ্যে। ভারতের বিপক্ষে কোনও খেলাই হয়না। আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে সেটা খেলে।
মি বোস বলেন, এমন অবস্থায় যত ভাল দলই হোক তার উন্নতি করা মুশকিল। পাকিস্তানের নতুন যারা আসছে তারা তো বেশি খেলতেই পারছে না।
রাজনৈতিক পরিস্থিতি যদি বদলে না যায় তাহলে পাকিস্তানের ক্রিকেটে উন্নতি করা মুশকিল আছে- তার মত।

– তথ্য সূত্র: বিবিসি বাংলা।