এবারও দেশসেরা লোহাগড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয়

328

নড়াইলকণ্ঠ ॥ ধারাবাহিক সাফল্যের অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে ৪৬তম শীতকালীন জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় এবারও দেশসেরা হয়েছে লোহাগড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয়। এ নিয়ে টানা নয়বার (৯বছর) দেশের মধ্যে শীর্ষ স্থান দখল করেছে শতবর্ষ প্রাচীন (১৯০২ সালে প্রতিষ্ঠিত)
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া সমিতি এ খেলাধুলার আয়োজন করে। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে ২২ জানুয়ারি ঢাকার মোহাম্মদপুরে শারীরিক শিক্ষা কলেজে মাধ্যমিক পর্যায়ের সর্ববৃহৎ এই ক্রীড়া আসর বসে। গত ১৬ জানুয়ারি এই ক্রীড়া আসর উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ২২ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রীসহ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আলমগীর, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক এস এম ওয়াহিদুজ্জামান, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মাহাবুবুর রহমান, জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া সমিতির সম্পাদক ও মাউশির উপপরিচালক (শারীরিক শিক্ষা) ফারহানা হক প্রমুখ।
সংশিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেশব্যাপী উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে বিজয়ী হয়ে এ বছর ঢাকায় জাতীয় প্রতিযোগিতা হয়। এই প্রতিযোগিতায় বালক ও বালিকা বিভাগে অ্যাথলেটিকসে মোট ৩৬টি ইভেন্ট ছিল। পুরস্কার ছিল ১০৮টি। লোহাগড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয় পেয়েছে ১৪টি পুরস্কার। এর মধ্যে ৬টি স্বর্ণ, ৪টি রৌপ্য ও ৪টি ব্রোঞ্জপদক। এ ছাড়া দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী বিজয় মল্লিক তিনটি স্বর্ণপদক পেয়ে ব্যক্তিগত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। অন্য পদকপ্রাপ্তরা হলো সুমন শেখ, নমিতা কর্মকর, রুমা খানম, মোহাম্মদ আলী, কাজল বিশ্বাস ও হাফিজুর রহমান। দৌড় এবং রিলে দৌড়, লাফ-ধাপ-ঝাপ, দীর্ঘ ও উচ্চ লাফ এবং গোলক, বর্শা, চাকতি নিক্ষেপসহ প্রায় সব বিভাগে কৃতিত্ব অর্জন করেছে তারা।
ফারহানা হক মুঠোফোনে বলেন, এ বছরসহ টানা নয়বার পদক পাওয়ার দিক দিয়ে দেশের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে লোহাগড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয়। এ বিদ্যালয়ের কারনেই যশোর ও বরিশাল বোর্ড নিয়ে গঠিত গোলাপ অঞ্চল এবারও চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এ কৃতিত্ব ওই বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক দিলীপ চক্রবর্তীর কারণে। দিলীপ চক্রবর্তী বলেন, নিবিড় চর্চার জন্য এ অর্জন ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে।