নড়াইল যশোরের সীমান্তবর্তী বাঁকড়ীতে দু’দিনব্যাপি অমল সেন স্মরণমেলার উদ্বোধন

173

নড়াইলকণ্ঠ ॥ ইতিহাসখ্যাত নড়াইলের তে-ভাগা আন্দোলনের অগ্রপথিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাবেক সভাপতি কমরেড অমল সেনের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে স্মরণ করা হচ্ছে। অমল সেন স্মৃতিরক্ষা NK_January_2017_0087কমিটির উদ্যোগে এ উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী অমল সেন স্মরণমেলা শুরু হয়েছে।
মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারী) বিকালে নড়াইল যশোরের সীমান্তবর্তী বাঁকড়ী গ্রামে অমল সেনের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্যদিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। এ সময় অমল সেন স্মৃতিরক্ষা কমিটি, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটি, নড়াইল জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, যশোর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, মাগুরা জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, সাতক্ষীরা জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, বরিশাল জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টি, নড়াইল জেলা সিপিবি, জেলা জাতীয় কৃষক সমিতি, জেলা খেতমজুর ইউনিয়ন, নারী মৈত্রী, ছাত্র মৈত্রী ও যুব মৈত্রী কেন্দ্রীয় কমিটিসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন কমরেড অমল সেনের সমাধিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। এ সময় কমরেড অমল সেনকে লাল সালাম জানানো হয়।
শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে বাঁকড়ী স্কুল মাঠে সরলা সিংহ অস্থায়ী মঞ্চে আয়োজিত আলোচনা সভায় অমল সেন স্মৃNK_January_2017_0093তিরক্ষা কমিটির সভাপতি কমরেড ইকবাল কবির জাহিদের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন প্রধান অতিথি বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনিচুর রহমান মল্লিক, প্রধান বক্তা বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য সাবেক সম্পাদক কমরেড বিমল বিশ্বাস, মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি, বরিশাল-৩ আসনের সংসদ সদস্য টিপু সুলতান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি ডা: শহীদুল্লাহ শিকদার, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড আ: রশিদ, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান এমপি। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কমরেড অমল সেন স্মৃতি রক্ষা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কম: বিপুল কুমার বিশ্বাস।
বক্তারা কমরেড অমল সেনের জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে সত্যিকার অর্থে অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ার লড়াইয়ে সামিল হওয়ার আহ্বান জানান।
‘কমরেড অমল সেন স্মৃতি রক্ষা কমিটি’র উদ্যোগে আয়োজিত দু’দিনব্যাপি মেলার অনুষ্ঠান সূচির মধ্যে আরো রয়েছে কৃষক সমাবেশ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। তাছাড়া বাকড়ী স্কুল সংলগ্ন মাঠে বসেছে দুদিনব্যাপি গ্রামীণ মেলা।