ওয়ার্কার্স পার্টির ওপর হামলাকারীরা জামাত-বিএনপি’র এজেন্ট-বাদশা এমপি

280

নড়াইলকণ্ঠ ॥ নড়াইল জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট nk_january_2017_0048কমরেড নজরুল ইসলামের ওপর হামলাকারীরা জামায়াত বিএনপির এজেন্ট। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি যখন ১৪ দলের সাথে ঐক্যবদ্ধ, দেশ যখন উন্নয়নের ধারায় এগিয়ে যাচ্ছে, তখন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম শক্তি ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামের ওপর হামলার ঘটনাটি স্বাধীনতা বিরোধীদের ষড়যন্ত্রের একটি অংশ। স্থানীয় আওয়ামীলীগের প্রতি আমার অনুরোধ যারা দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছে, জননেত্রী শেখ হাসিনার ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছে, সঙ্গত কারনে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করুন।
তিনি আরো বলেন, ওয়ার্কার্স পার্টি আদর্শের রাজনীতি করে। আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালন করে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে দুর্বল করে এমন কাউকে আমরা বন্ধু মনে করি না। তাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই চলবে। সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু, জুয়াড়ীদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই অব্যাহত থাকবে।
nk_january_2017_0050বুধবার (১১ জানুয়ারী) বিকালে শহরের রূপগঞ্জ মুচিরপোল প্রজন্ম চত্বরে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামের হামলার প্রতিবাদ এবং আসামীদের গ্রেফতারের দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি উপরোল্লেকিত বক্তব্য রাখেন।
নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সম্পাদক ও পলিট ব্যুরোর সদস্য কমরেড বিমল বিশ্বাস, কমরেড ইকবাল কবির জাহিদ, কমরেড মোস্তফা লুৎফুল্লাহ-এমপি, নড়াইল জেলা জাসদ (শরীফ নূরুল আম্বিয়া গ্রুপ) সভাপতি অ্যাডভোকেট হেমায়েত উল্লাহ হিরু, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, সম্পাদকীয় মন্ডলী সদস্য নওরোজ মোল্যা প্রমুখ।
প্রতিবাদ সমাবেশে থেকে অবিলম্বে আসামীদের গ্রেফতার ও উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানানো হয়।
উল্লেখ্য যে, নড়াইল শহরের কুড়িরডোব মাঠে গত বছরের ১৩ অক্টোবর থেকে মাসব্যাপী বস্ত্র ও তাঁত শিল্প মেলাকে ঘিরে র‌্যাফেল ড্র’র নামে জুয়ার আয়োজন করা হয়। সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে জুয়া বন্ধের দাবির আন্দোলনে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামও অংশ নেয়। আন্দোলনের এক পর্যায়ে প্রশাসন র‌্যাফেল ড্র’ বন্ধ করে দেন।
২৫ অক্টোবর সন্ধ্যার পর নড়াইল শহরের রুপগঞ্জ এলাকায় মুস্তারী কমপ্লেক্স মার্কেটে দলীয় কর্মীদের নিয়ে আলোচনার সময় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন নজরুল ইসলাম। এ ঘটনার পরদিন ২৬ অক্টোবর আহতের ভাইয়ের ছেলে করিমুল ইসলাম কুশল বাদী হয়ে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান মুকুলসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরো ৮/১০ কে আসামি করে হত্যাচেষ্টা মামলার দায়ের করেন। এ মামলায় তিনজনকে গ্রেফতার করলেও মামলার এক ও দুই নম্বর আসামীরা গ্রেফতার না হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।