কোটালীপাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩, সড়ক অবরোধ

137

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩, আহত ১০, প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় ৬টায় গোপালগঞ্জ পয়সারহাট সড়কের তারাশী নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষ দর্শীরা জানান, ইট ভাঙ্গা শ্রমিকরা মাঝবাড়ী থেকে কয়খা গ্রামে আসার সময় তারাশী নামক স্থানে পৌঁছালে পয়সারহাট থেকে ছেড়ে আসা একটি বাস মুন এন্টারপ্রাইজ (গোপালগঞ্জ জ-০৫০১২) লোকাল ঘাতক বাসটি শ্রমিক ভরতি টম টমকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে দুই জন নিহত হয় আহতদেরকে কোটালীপাড়া স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে আসা হয়।
গুরুত্বর অসুস্থ দুই জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত ডাক্তার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। পথিমধ্যে একজন এ্যাম্বুলেন্সে মারা যায়। নিহতরা হলেন, রাজু হাওলাদারের ছেলে হেলাল হাওলাদার (৪০), সইজদ্দিন হাওলাদারের ছেলে ইমরান হাওলাদার (৩০), ছত্তার গাজীর ছেলে নজির গাজী (৪০)। আহত ১০ জনের মধ্যে হাশেম মিয়ার ছেলে সোহরাব মিয়া (৪০) খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ঘটনার পর থেকে গোপালগঞ্জ পয়সারহাট সড়কে লোক বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।
শনিবার সকাল থেকে নিহতদের গ্রাম কয়খাসহ আশ পাশের লোকজন রাস্তায় এসে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এ সময়ে গাছের গুড়ি, টায়ার জ্বালিয়া বাস মালিক, ড্রাইভার, সুপার ভাইজারও হেলপারদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করে।
সকাল ৯টার পরে কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান হাওলাদার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জিল্লাল হোসেন, পৌর মেয়র এইচ এম অহিদুল ইসলাম বিক্ষোভে উপস্থিত হয়ে বিক্ষোভকারী ও নিহতদের পরিবারের সাথে কথা বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত সুষ্ঠ বিচার না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত লোকাল বাস বন্ধ থাকবে।
এলাকাবাসী বলেন, বাসের সাথে অবৈধ টমটম, নছিমন ও করিমন সমান ভাবে দায়ী। এ যানগুলো পুলিশ প্রশাসনের নাকের ডগা দিয়ে চলছে বীরদর্পে। দেখেও না দেখার ভান করে থাকে কি ভাবে পুলিশ প্রশাসন ?।
বীর মুক্তিযোদ্ধা হিঙ্গুল হাজরা সাথে কথা হলে তিনি জানান, অবৈধ টমটম, নছিমন ও করিমন সরকার নিষিদ্ধ ঘোষিত গাড়ী পুুলিশকে মাশহারা দিয়ে রাস্তায় চলাচল করে বলেই প্রতিনিয়ত প্রাণিহানীর ঘটনা ঘটে আসছে। আমি নিহত পরিবারদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।