গিনেজ বুকে বিজয় দিবসের সাইকেল র‍্যালি

133

বিজয়ের ৪৫ বছরকে স্মরণীয় করে রাখতে রাজধানীতে ১২৮৭ জন সাইক্লিস্ট নিয়ে ‘সিঙ্গেল লাইন রাইডে’র আয়োজন করে বিডি সাইক্লিস্ট নামের একটি সংগঠন।

এ উপলক্ষে উৎসবের রঙ্গে রাঙ্গা হয় গোটা বসুন্ধরা এলাকা। সঙ্গে, সংগঠন আশা এবারের রাইটি জায়গা করে নেবে গিনেজ বুক অব ওয়াল্ডে।

সুশৃঙ্খল, সু-সংঘবদ্ধ। এগিয়ে চলছে হাজারো সাইকেল। কেউ কারো পাশে নয় বরং এক সারিতে। থামা যাবে না আবার পা হড়কালেই ডিসকোয়ালিফাই। কারণ একজনের ভুলেই ভেস্তে যেতে পারে পুরো আয়োজন। এই চলন্ত সাইকেলের দীর্ঘ সারি তৈরি করার লক্ষ্যে একটাই, লাল সবুজের পতাকাকে বিশ্বের দরবারে আরেকবার তুলে ধরা।

২০১০ সালের ৩ অক্টোবর ৯১৪ জন সাইক্লিস্ট নিয়ে মার্কিনীরা এ রেকর্ডের সূচনা করে নাম লিখায় গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে। এর ৫ বছর পরে রেকর্ডটি নিজেদের দখলে নেয় বসনিয়া হার্জেগোভিনা। সেবার সাইক্লিস্টের সংখ্যা ছিলো ৯৮৪ জন। এবার বিজয়ের ৪৫ বছর স্মরণীয় করে রাখতে, ১২৮৭ জন সাইক্লিস্ট নিয়ে এ র‌্যালির আয়োজন করে বিডি সাইক্লিস্ট নামের একটি সংগঠন। শিশু কিশোর থেকে শুরু করে র‌্যালিতে অংশ নেন বিভিন্ন বয়সের মানুষ।

এর আগে সংসদ ভবন থেকে, প্রায় ৫ হাজার সাইক্লিস্ট নিয়ে সংগঠনটি আয়োজন করে বিজয় র‌্যালির। সকালে, শীতের রুক্ষতা উপেক্ষা করে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউ’তে হাজির হাজারো সাইক্লিস্ট।

র‌্যালিটি মহাখালী-গুলশান-বাড্ডা ঘুরে শেষ হয় বসুন্ধরায়। ভবিষ্যতে আরো বড় পরিসরে এ ধরণের আয়োজনের পরিকল্পনা আয়োজকদের।

শেষ পর্যন্ত গিনেজ বুক অব ওয়াল্ড রেকর্ডে বাংলাদেশের না উঠবে কিনা তা জানা যাবে আগামী ১৪ থেকে ২১ দিনের মধ্যে।