সুন্দরবনের জীববৈচিত্রের জরিপ শুরু হচ্ছে শনিবার

120

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট : সুন্দরবনসহ সারাদেশে শুরু হচ্ছে সংরক্ষিত বনের জীববৈচিত্র্য ও ভূমি জরিপের কাজ।
শনিবার (১০ ডিসেম্বর) সকালে বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের হাড়বাড়িয়া এলাকায় আধুনিক পর্যটন লঞ্চ ‘টাঙ্গুয়ার হাওড়ে’ বসে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘ফরেস্ট ইনভেনটরি’ নামের এই প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু।
এ সময় প্রধান বন সংরক্ষক (সিসিএফ) মো. ইউনুস আলী, ফরেস্ট ইনভেনটরি প্রকল্পে আর্থিক, কারিগরি এবং প্রযুক্তিগত সহায়তায়কারী এফএও, ইউএনডিপি ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিসহ বন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।
এফএও, ইউএনডিপি ও যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক, কারিগরি এবং প্রযুক্তিগত সহায়তায় আগামী ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বন বিভাগ এই ফরেস্ট ইনভেনটরির কাজ শেষ করবে। বন বিভাগ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।
খুলনা সার্কেলের বন সংরক্ষক (সিএফ) জহির উদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশের সমগ্র সংরক্ষিত বনভূমির অর্ধেকেরও বেশি অর্থাৎ ৫১ শতাংশ বনই হচ্ছে সুন্দরবন। প্রায় ৬ হাজার ১১৭ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই বনে রয়েছে সুন্দরী, গেওয়া, গরান,পশুরসহ ৩৩৪ প্রজাতির গাছপালা, রয়েল বেঙ্গল টাইগার, চিত্রল হরিণসহ ৩৭৫ প্রজাতির বন্যপ্রাণি।নদ-নদীতে রয়েছে বিলুপ্তপ্রায় তালিকায় থাকা ইরাবতীসহ ৬ প্রজাতির ডলফিন, কুমির ও ২১০ প্রজাতির মাছ। সুন্দরবন উপকূলে বঙ্গবন্ধু আইল্যান্ডসহ নতুন-নতুন দ্বীপ ও বিভিন্ন চর জেগে ওঠায় ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ এই ম্যানগ্রোভ বনের আয়তনও অনেক বেড়েছে। জরিপ করে সঠিক ম্যাপ না করায় বর্তমানে সুন্দরবনের আয়তন কতোটা বেড়েছে তা জানা সম্ভব হচ্ছে না।অন্যদিকে অন্যান্য সংরক্ষিত বনের আয়তন পূর্বের অবস্থায় রয়েছে কিনা সেসব তথ্য বন বিভাগের হাতে থাকা প্রয়োজন। এই অবস্থায় সুন্দরবনসহ দেশের সব সংরক্ষিত বনের হাল নাগাদ বন্যপ্রাণিসহ জীববৈচিত্র্যে, নতুন ম্যাপিং, মাটি-পানির অবস্থা ও সংরক্ষিত বনাঞ্চলের গাছপালা কি পরিমাণ কার্বন ধরে রেখেছে সেসব বিষয় জানতে ফরেস্ট ইনভেনটরি নামে একটি প্রকল্পের মাধ্যমে বন জরিপ করার সিদ্ধান্ত নেয় বন মন্ত্রণালয়।