নড়াইলে যুদ্ধযাত্রা ‘৭১ উদযাপন উদ্বোধন

189

নড়াইলকণ্ঠ ॥ আজ ৯ ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এই দিনে নড়াইল সদর উপজেলার ভদ্রবিলা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রাম হতে চুড়ান্ত যুদ্ধযাত্রা শুরু হয়। পরের দিন ১০ ডিসেম্বর নড়াইল পানি উন্নয়নবোর্ডে হানাদার বাহিনীর সাথে যুদ্ধের এক পর্যায়ে হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। হানাদার মুক্ত হয় নড়াইল। উড়ানো হয় লাল সবুজের পতাকা। মুক্তিযুদ্ধের সেই স্মৃতিকে নতুন প্রজন্মের কাছে ছড়িয়ে দিতে দু’দিনব্যপী যুদ্ধযাত্রা-৭১ উদযাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এ উপলক্ষে শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় ভবানীপুর আর.বি.এফ.এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে দু’দিনব্যাপী যুদ্ধযাত্রা ৭১ এর উদ্বোধন করেন নড়াইলের পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নড়াইল সদরের ৭১’ বি.এল.এফ কমান্ডার (মুজিব বাহিনী) ও যুদ্ধযাত্রা ৭১ পরিষদের আহবায়ক শরীফ হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন প্রধান বক্তা ৭১’ বি.এল.এফ প্রশিক্ষক (মুজিব বাহিনী) শরীফ নূরুল আম্বিয়া, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম, জেলা জাসদের সভাপতি অ্যাডভোকেট হেমায়েত উল্লাহ হিরু, যুদ্ধাত্রা ৭১ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক শরীফ আরিফ নাছির, শরীফ মোস্তাফিজুুর রহমাান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
যুদ্ধযাত্রা ৭১ উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা, ভবিলবল প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও জারীগানের আয়োজন করা হয়েছে।
নড়াইলে যুদ্ধযাত্রা ‘৭১ উদযাপন উদ্বোধন
নড়াইলকণ্ঠ ॥ আজ ৯ ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এই দিনে নড়াইল সদর উপজেলার ভদ্রবিলা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রাম হতে চুড়ান্ত যুদ্ধযাত্রা শুরু হয়। পরের দিন ১০ ডিসেম্বর নড়াইল পানি উন্নয়নবোর্ডে হানাদার বাহিনীর সাথে যুদ্ধের এক পর্যায়ে হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। হানাদার মুক্ত হয় নড়াইল। উড়ানো হয় লাল সবুজের পতাকা। মুক্তিযুদ্ধের সেই স্মৃতিকে নতুন প্রজন্মের কাছে ছড়িয়ে দিতে দু’দিনব্যপী যুদ্ধযাত্রা-৭১ উদযাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এ উপলক্ষে শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় ভবানীপুর আর.বি.এফ.এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে দু’দিনব্যাপী যুদ্ধযাত্রা ৭১ এর উদ্বোধন করেন নড়াইলের পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নড়াইল সদরের ৭১’ বি.এল.এফ কমান্ডার (মুজিব বাহিনী) ও যুদ্ধযাত্রা ৭১ পরিষদের আহবায়ক শরীফ হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন প্রধান বক্তা ৭১’ বি.এল.এফ প্রশিক্ষক (মুজিব বাহিনী) শরীফ নূরুল আম্বিয়া, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম, জেলা জাসদের সভাপতি অ্যাডভোকেট হেমায়েত উল্লাহ হিরু, যুদ্ধাত্রা ৭১ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক শরীফ আরিফ নাছির, শরীফ মোস্তাফিজুুর রহমাান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
যুদ্ধযাত্রা ৭১ উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা, ভবিলবল প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও জারীগানের আয়োজন করা হয়েছে।