দাফনের ৬৮ দিন পর হুমায়ন উদ্ধার!

120

পারিবারিক কলহের জের ধরে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান মাগুরার সদর উপজেলার ইছাখাদা গ্রামের দর্জি হুমায়ন কবির। নিখোঁজের ১০ দিন পর পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহের শৈলকূপা উপজেলার হাটফাজিলপুর গ্রামের মাঠ থেকে এক যুবকের গলিত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিজেদের সন্তান দাবি করে মৃতদেহ বাড়িতে নিয়ে দাফন করে হুমায়নের পরিবার।
দেওয়া হয় মিলাদ। হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার দাবিতে পোস্টার, ব্যানারে ছেয়ে যায় ওই এলাকা। করা হয় মানববন্ধন। এমনকি, চারজনকে আসামি করে শৈলকূপা থানায় মামলা দায়ের করেন হুমায়নের পিতা আকমল হোসেন।
মামলা দায়েরের পর তদন্ত শুরু করে পুলিশ। তদন্তে বেরিয়ে আসে হুমায়নের বেচেঁ থাকার তথ্য। অভিযান চালিয়ে আজ সোমবার সন্ধ্যায় যশোর থেকে উদ্ধার করা হয় হুমায়ন কবিরকে।
ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, গত ২০ সেপ্টেম্বর শৈলকূপা থেকে এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আকমল হোসেন বাদী হয়ে শৈলকূপা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকালে হুমায়ন বেঁচে আছে- এমন প্রমাণ পাওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় পুলিশ। আজ বিকেলে যশোরের একটি টেইলার্স থেকে উদ্ধার করা হয় হুমায়নকে।
সন্ধ্যায় জনপ্রতিনিধির উপস্থিতিতে মা-বাবার কাছে হুমায়ন কবিরকে হস্তান্তর করে পুলিশ।