কিউবার বিপ্লবী সমাজতান্ত্রিক নেতা ফিদেল কাস্ত্রো প্রয়াত

135

নড়াইলকণ্ঠ : কিউবার মহান বিপ্লবী, সমাজতান্ত্রিক নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর প্রয়াণ হয়েছে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। শুক্রবার হাভানায় স্থানীয় সময় গভীর রাতে প্রয়াত হয়েছেন এই মহান কমিউনিস্ট নেতা। প্রয়াণের খবর জানিয়েছেন তাঁর ভাই তথা কিউবার রাষ্ট্রপতি রাউল কাস্ত্রো। এবছরই অগাস্ট মাসে নিজের নব্বইতম জন্মদিন পালন করেন তিনি। তবে শরীর বিশেষ ভালো যাচ্ছিল না। কিউবা বিপ্লবের মধ্যমণি এই নেতা সারা বিশ্বে কমিউনিস্ট ভাবধারার মানুষের কাছে আদর্শ বলে পরিচিত ছিলেন।
ফিদেল কাস্ত্রো ১৯৫৯ সাল থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত কিউবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। এরপরে ১৯৭৬ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত কিউবার রাষ্ট্রপতির পদ সামলান। ২০০৮ এর দায়িত্ব ছেড়ে দেন ভাই রাউল কাস্ত্রোর হাতে। ধীরে ধীরে সরে যান রাজনীতি থেকে। কিউবার কমিউনিস্ট পার্টির প্রথম সম্পাদক ছিলেন তিনি। ১৯৬১ সালে দল তৈরি হলে তখন থেকে শুরু করে ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনি পদে ছিলেন। তাঁর নেতৃত্বে কিউবা একটি একদলীয় সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসাবে বিশ্বের দরবারে পরিগণিত হয়।
কিউবা বিপ্লবের শীর্ষ নেতা এবং সে দেশের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ফিদেল কাস্ত্রো মারা গেলেন। বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। বয়সজনিত অসুস্থতায় গত আট বছর ধরে সক্রিয় রাজনীতি থেকে দূরে চলে গিয়েছিলেন তিনি। ২০০৮ সালে সরে দাঁড়ান কিউবার প্রেসিডেন্ট পদ থেকে। ফিদেলের জায়গায় দায়িত্ব নেন তাঁরই ভাই রাউল কাস্ত্রো।
গত আগস্টে তাকে সর্বশেষ জনসমক্ষে দেখা যায়। এর আগে গত এপ্রিলে কমিউনিস্ট পার্টির সম্মেলনে ভাষণ দেন তিনি। ১৯৫৯ সালে ফিদেল ক্যাস্ত্রোর নেতৃত্বে গণবিপ্লবের মধ্য দিয়ে, মার্কিন সমর্থিত বাতিস্তা সরকারের পতন ঘটে।
পরে প্রজাতন্ত্রিক কিউবার প্রধানমন্ত্রী হন ফিদেল ক্যাস্ত্রো। সে থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত কিউবার প্রধানমন্ত্রী ও পরে ১৯৭৬ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ক্যাস্ত্রো।
এদিকে, ফিদেল ক্যাস্ত্রোর মুত্যৃতে গভীর শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ।