নড়াইলে প্রথম নারী মেয়র প্রার্থী আনজুমান আরা

38

স্টাফ রিপোর্টার: বহু জল্পনা-কল্পনা শেষে নড়াইল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হলেন আনজুমান আরা। গত শনিবার রাতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ তাকে দলীয়ভাবে মনোনয়ন দেয়। এই প্রথম কোন নারী প্রার্থী হলেন নড়াইল পৌরসভা মেয়র পদে।

এদিকে দলীয় সূত্রে জানাগেছে, আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত এ জেলায় নড়াইল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ থেকে মোট ১১জন মনোনয়ন চান। গত শনিবার রাতে আনজুমান আরা কেন্দ্র থেকে মনোনয়ন পেলেও দলের মধ্যে কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি; বরং প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে অধিকাংশ প্রার্থী, আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, সমর্থক, সাধারণ জনগণ সরাসরি এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এদিকে, আনজুমান আরা ঢাকা থেকে গতকাল সোমবার নড়াইল এলে বিশাল শোডাউনের মধ্য দিয়ে তাকে বরণ করে নেন নেতাকর্মীরা। সদরের তুলারামপুর এলাকা থেকে মহিলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে প্রায় এক হাজার মোটরসাইকেল ও গাড়ি দিয়ে মোটর শোভাযাত্রার মাধ্যমে তাকে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে নিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, জেলা আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান জিন্নাহ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মলয় কুমার কুণ্ডু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাবেয়া ইউসুফ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

জানা যায়, নড়াইলের অগ্নিকন্যা হিসেবে খ্যাত আনজুমান আরা নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি ছিলেন। বর্তমানে মহিলা আওয়ামী লীগের জেলা কমিটির সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত। পাঁচ বছর আগে শুধু রাজনীতি করার জন্য শিক্ষকতা ছেড়ে দেন।

আনজুমান আরা বলেন, মেয়র নির্বাচিত হলে নড়াইল শহরের রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, চিত্রা নদীর তীরে ওয়াকওয়েসহ একটি মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী সাজানো হবে। পৌরবাসী যাতে সত্যিকার নাগরিক সুবিধা পায়, সে জন্য নিজেকে নিবেদিত করব।

এদিকে, কালিয়া পৌরসভায় মেয়র পদে নৌকার টিকিট পেয়েছেন ওয়াহিদুজ্জমান হীরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস বলেন, দলীয় প্রার্থীর বাইরে যদি কেউ মেয়র পদে বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন, তাহলে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সঙ্গে সঙ্গে দল থেকে তাকে বহিস্কার করা হবে।

আগামী ৩০ জানুয়ারি নড়াইল পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।