নড়াইলে বর্তমান সকারের উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ে আলোচনা

113

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলে সকারের সাফল্য অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (৭ মার্চ) সকাল ১০টায় সদর উপজেলা মিলনায়তনে জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে ও সদর উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বর্তমান সকারের সাফল্য অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: সিদ্দকুর রহমান। জেলা তথ্য অফিসার মো: মেহেদী হাসান বর্তমান সকারের আমলে বাংলাদেশের ও নড়াইল জেলার সাফল্য ও অর্জনের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন।

জেলা তথ্য অফিসারের আলোচনায় বলেন, বর্তমান সরকারর উল্লেখযোগ্য অর্জন সমূহের মধ্যে রয়েছে- ৭১ এর গণহত্যার হোতা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, দেশের ১ম স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু-১’, ফ্রান্সের ‘থ্যালাস এ্যালেনিয়া স্পেস’ এর সঙ্গে চুক্তি সম্পন্ন এবং ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর উৎক্ষেপন, জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক সর্বোচ্চ সম্মান “চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ” পুরস্কারে ভুষিত প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা, বাংলাদেশের অর্থনীতি জিডিপি’র বর্তমান ভিত্তি বিশ্বে ৪৫তম এবং ক্রয়ক্ষমতার ভিত্তিতে ৩৩তম, ২৮হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নিজস্ব অর্থায়নে দেশের ইতিহাসে বৃহত্তম নির্মাণ প্রকল্প পদ্মাসেতু কাজ প্রায় ২৮ ভাগ সম্পন্ন, সম্প্রতি সপ্তম পঞ্চমবার্ষিক পরিকল্পনায় দারিদ্রের হার ১৮.৬ভাগে কমিয়ে আনার পরিকল্পনা গ্রহণ, তৃণমূল পর্যায় আইসিটির ব্যাপক উন্নয়ন ঘটেছে এবং বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তি খাত থেকে ৩০০ মিলিয়ন ডলার আয় হচ্ছে। ২০৪১ সালের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাত থেকে বছরে ৫০বিলিয়ন ডলার আয় সম্ভব। তথ্য প্রযুক্তি প্রসারের জন্য আইটিইউ আমাদের ICTs in Sustainable Development Award ২০১৫ প্রদান করেছে। গাজীপূর এর হাইটেক পার্ক নির্মাণ এবং চতুর্থ প্রজন্মের আইসিটি দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে প্রতিষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়, রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের প্রায় ২৬ হাজার কোটি টাকা ব্যায়ে ২ হাজার মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ এগিয়ে যাচ্ছে, দীর্ঘ ৪৪ বছর পর ২০১৫ সালে ভারতের পার্লামেন্টে স্থলসীমানা চুক্তি অনুমোদিত হয়। ফলে ৫২ হাজার ছিটমহলবাসীর ৬৮ বছরের মানবেতর জীবনের অবসান হয়েছে, ছিটমহল বিনিময়ে ১০ হাজার ৫০ একর জমি বাংলাদেশের ভূখন্ড যোগ হয়েছে, সমুদ্রসীমা বিজয় এবং সমুদ্রে ১ লাখ ১৮ হাজার ৮১৩ বর্গকিলোমিটার এলাকায় দেশের নিরঙ্কুশ অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি ব্যাপক সম্প্রসারণ, বই উৎসবের মধ্যদিয়ে বছরে প্রথম মাসেই শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেয়া, একটি বাড়ি একটি খামার, পাটের জীনতত্ত্ব আবিষ্কার, ভাসমান কৃষি পদ্ধতি চাষে বিশ্ব খাদ্য সংস্থার পুরস্কার, আইসিসি অনুর্দ্ধ ১৯ বিশ্বকাপ ২০১৬ সাফল্য।

এছাড়া আলোচনা জানা যায় এ সকারের আমলে নড়াইল জেলায় ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ, ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে পিটিআই’র নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে ৯৫% সম্পন্ন, নড়াইল পুরাতন ফেরিঘাট পয়েন্টে চিত্রা ব্রীজ নির্মাণের কাজ প্রায় ৪৫ভাগ সম্পন্ন, ৫০ শয্যা সদর হাসপাতালকে একশত শয্যায় উন্নীতকরণ, ৩১ শয্যা কালিয়া ও লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৫০ শর্যায় উন্নীতকরণ, ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সিটিটিউশন অনুমোদিত, নার্সিং ইন্সিটিটিউশন অনুমদিত ও জমি অধিগ্রহণ শুরু, জেলা পরিষদ কর্র্তৃক প্রায় ৫শত একর জমি উদ্ধার, বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের অবকাঠমো উন্নয়ন, নড়াইলে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখ স্মৃতি পাঠাগার উন্নয়ন এবং তাঁর নিজ গ্রামের বাড়িতে স্মৃতিসৌধ সংরক্ষণ, গেজেটেড অফিসার্স ডরমেটরী নির্মাণে জমি অধিগ্রহণ সম্পন্ন, হাইকেট পার্ক অনুমদিত, কালনা পয়েন্টে মধুমতি নদীর উপর সেতু উদ্বোধন, গন্ডব পয়েন্টে ব্রীজ নির্মাণ শুরুর পথে, লোহাগড়া-কালনা-নড়াইল-যশোর ফোরলেনের সড়ক অনুমদিত, রেলপথ প্রস্তাবনায় চুড়ান্ত পর্যায়, লোহাগড়ায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণ, সকল ইউনিয়নে ইন্টারনেট সংযোগের প্রায় সম্পন্ন, ৫২টি ডাকঘরে প্রযুক্তি সহায়তা প্রদান, সাউথ ওয়েস্ট পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রকল্প বাস্তবায়ন, ৬৮টি থেকে ৯০টি কমিউনিটি ক্লিনিক উন্নীতসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হয়েছে।

এসময় বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার নাছিমা খাতুন, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সঞ্জিত কুমার সাহা, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মো: আনিছুর রহমান, নড়াইল কণ্ঠের সম্পাদক কাজী হাফিজুর রহমান, অ্যাডভোকেট রওশন আরা লিলি, সাংবাদিক সাথী তালুকদার, মনজুরুর রহমান পান্নু, হাফিজ সিকদার প্রমুখ।