নড়াইলে গলা কেটে কলেজ শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

119

নড়াইলকণ্ঠ ॥ খুলনার বটিয়াঘাটা ডিগ্রি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত সহকারি অধ্যাপক অরুণ কুমার রায়কে (৭২) গলা কেটে হত্যার প্রতিবাদে নড়াইলে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৩টায় নড়াইল সদরের তুলারামপুর ইউনিয়নের বেনাহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ চত্বরে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এগারোখানের সর্বস্তরের জনগণের আয়োজনে প্রায় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন ও সমাবেশে তুলারামপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি অসিত কুমার মল্লিকের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, নিহতের স্ত্রী মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) খুলনার উপ-পরিচালক এবং মামলার বাদী নিভা রাণী পাঠক, নিহতের ভাই কলেজ শিক্ষক স্বপন রায়, তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার এস.আই শিমুল কুমার দাস, অধ্যক্ষ (অব) বিপ্লব সেন, ওয়ার্কার্স পার্টি নড়াইল জেলার সভাপতি অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, কলেজ শিক্ষক নিখিল আঢ়্য, নিখিল পাঠক, রমেশ চন্দ্র অধিকারী, স্বপন অধিকারী, বিপুল বিশ্বাস প্রমুখ।
মানববন্ধনে নিহতের পূত্র প্রকৌশলী ইন্দ্রোজিত রায়সহ স্থানীয় কয়েকটি গ্রামের কয়েকশত নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

নিহতের স্ত্রী নিভা রাণী পাঠক বলেন, তাঁর স্বামী কারও কোনো ক্ষতি করেনি, কাউকে ফাঁকি দেয়নি ও বঞ্চিত করেনি। সব সময় মানুষের পাশে থেকেছেন, উপকার করেছেন। এলাকার মন্দির ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য কাজ করেছেন। কখনও ভাবতেও পারিনি তাঁর শেষ পরিণতি এমন মর্মান্তিক হবে। কে বা কারা কি উদ্দেশ্যে তাকে হত্যা করলো তার বিচার চাই। এ ধরণের পরিণতি যেন আর কারও না হয়।

অন্যান্য বক্তারা মর্মান্তিক এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার তদারকিসহ ঘটনার রহস্য উদঘাটন এবং দোষীদের গ্রেফতারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার এস.আই শিমুল কুমার দাস জানিয়েছেন, নিহতের ঘটনায় যে ৬জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছিল। তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের কাছ থেকে কোনো ক্লু পাওয়া যায়নি। আসামিদের সনাক্ত ও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে সদর থানা পুলিশ সদরের তুলারামপুর ইউনিয়নের হিন্দু অধ্যুষিত বেনাহাটি গ্রামের নিজ বাড়িতে অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক অরুণ রায়ের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে।

জানাগেছে,এ বাড়িতে তিনি একা থাকতেন। ঐদিন (শুক্রবার) সারাদিন অরুণ রায়ের সাথে পরিবারের সদস্যরা যোগাযোগ করে না পাওয়ায় সন্ধ্যার পর নীভা রাণী পাঠক খুলনা থেকে বাড়িতে এসে স্বামীকে জবাই করা অবস্থায় দেখতে পান। এ ঘটনায় গত ২৪ অক্টোবর নিহতের স্ত্রী নিভা রাণী পাঠক সদর থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।