নড়াইল সরকারি শিশু পরিবারের শিশুদের বিক্ষোভ

78

নড়াইলকণ্ঠ ॥ নড়াইল সরকারি শিশু পরিবারের শিশুরা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেছে। তাদের ওপর অত্যাচার-নির্যাতনের প্রতিবাদে গতকাল সোমবার (২৬ অক্টোবর) সকাল আটটার দিকে তারা এ বিক্ষোভ করে।

শিশুরা অভিযোগ করে, গত রবিবার রাত ১০টার দিকে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়–য়া শিশু সোহান শিকদার অসুস্থ হয়ে পড়লে গেটে এসে অনেক ডাকাডাকি করলেও গেট খোলেনি দারোয়ান। এরপর ভাঙা জানালা দিয়ে বের হয়ে উপতত্ত্বাবধায়কের কাছে শিশুটিকে নিলে তারপর হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে। হঠাৎ রাত দুইটার দিকে পুলিশ এসে ঘুমন্ত শিশুদের ডেকে তোলে। এ সময়ে শিশুদের মারধর করে পুলিশ। কান ধরে ওটবস করানো হয়। উপতত্ত্বাবধায়ক মো. আসাদুল্লাহ পুলিশ ডেকে এই অত্যাচার-নির্যাতন করেছেন। ওই উপতত্ত্বাবধায়ক এর আগেও পুলিশ দিয়ে মারধর করিয়েছেন।

শিশুরা আরও অভিযোগ, প্রায়ই তাদের তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। গালিগালাজ করা হয়। কেউ রাতে অসুস্থ হলে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয় না। তাদের দিয়ে ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করানো হয়। প্রায় প্রতিদিনই রাতে পচা ও গন্ধ খাবার খাওয়ানো হয়। খাবার কেড়ে নেওয়া হয়। তাদের জগ-গ্লাস শিক্ষকদের বাসায়, তারা পানি খায় প্লেটে। ৩০টি ফ্যানের মধ্যে ৬-৭টি নষ্ট।

এ ব্যাপারে উপতত্ত্বাবধায়ক মো. আসাদুল্লাহর অভিযোগের ব্যাপারে জানতে তাঁকে বারবার ফোনে কল দিলেও তিনি ধরেননি।

বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক ও সরকারি শিশু পরিবারের কর্মকর্তারা দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে বৈঠক করেন।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক রতন কুমার হালদার বলেন, শিশুরা উশৃংখল আচারণ ও চেয়ার- টেবিল ভাঙচুর করেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ আনা হয়েছিল। মারধর করা হয়নি। অভিভাকদের সঙ্গে বৈঠক করে পরবর্তী সমাধান করা হবে।